1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আধুনিক ই-মেলের জনক চলে গেলেন

যে ব্যক্তি বিশ্বের প্রথম ‘পার্সন টু পার্সন' অনলাইন বার্তা পাঠানোর ব্যবস্থার নকশা করেছিলেন, তিনি আর নেই৷ ৭৪ বছর বয়সে চিরবিদায় নিয়েছেন রে টমলিনসন, জানিয়েছে তাঁর নিয়োগদাতা সংস্থা৷

আধুনিক ই-মেলের জনক হিসেবে বিবেচনা করা হয় রে টমলিনসনকে৷ সরাসরি ইলেকট্রনিক ম্যাসেজ পাঠানোর সিস্টেম তিনি তৈরি করেন ১৯৭১ সালে৷ ‘‘@'' চিহ্নকে ই-মেলে ব্যবহারের ধারণাও এসেছে তাঁর কাছ থেকেই৷

টমলিনসনের নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠান রেথিয়ন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘‘প্রযুক্তি পথিকৃৎ রে আমাদের সেই সময়ে ই-মেলের সঙ্গে পরিচিত করছেন, যখন কম্পিউটার নেটওয়ার্কের পথচলা সবে শুরু হয়েছিল৷'' প্রতিষ্ঠানটির দেয়া তথ্য অনুযায়ী, শনিবার মারা গেছেন রে টমলিনসন৷ তবে তাঁর মৃত্যুর কারণ এখনো জানা যায়নি৷

এদিকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অনেকেই টমলিনসনের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন৷ গুগলের জি-মেল টিম এক টুইটে ই-মেল উদ্ভাবন করায় তাঁকে ধন্যবাদ জানিয়েছে৷

রেনসেলিয়ার পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট এবং ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজির ডিগ্রিধারী টমলিনসন তাঁর ব্লগে ই-মেল উদ্ভাবনের কথা বিস্তারিত জানিয়েছেন৷ তিনি লিখেছেন, প্রথম ম্যাসেজটি এমন দু'টি মেশিনের মধ্যে পাঠানো হয়েছিল, যেগুলো আক্ষরিক অর্থেই পাশাপাশি ছিল এবং আর্পানেটের মাধ্যমে সংযুক্ত ছিল৷

পরীক্ষামূলকভাবে পাঠানো ম্যাসেজগুলোতে ঠিক কী ছিল, তা অবশ্য পরে মনে করতে পারেননি টমলিনসন৷ তাঁর কথায়, সেগুলো মনে রাখার মতো কিছু ছিল না বলেই পরে তিনি সেগুলো ভুলে গিয়েছিলেন৷ তবে পরীক্ষা শেষে তিনি তাঁর টিমকে যে ম্যাসেজ পাঠিয়েছিলেন, তাতে নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে কীভাবে ম্যাসেজ পাঠাতে হবে, তার বিস্তারিত লেখা ছিল৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন