1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

আদশশুমারি শুরু হলো জার্মানিতে

ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিয়ম অনুসারে প্রতি ১০ বছর অন্তর সদস্য দেশগুলোতে আদমশুমারি পরিচালনা করতে হয়৷ কিন্তু এতদিন জার্মানি তা করেনি৷ এবার সেই কাজ শুরু হলো৷

ARCHIV - ILLUSTRATION - Der Fragebogen und ein Rückumschlag an das Statistische Landesamt sind am 08.11.2010 gemeinsam mit Haus- und Bauunterlagen auf einem Schreibtisch in Schwerin unter einer Lupe zu sehen. In drei Wochen beginnt die große deutschlandweite Volkszählung - und in Niedersachsen suchen Kommunen landauf, landab immer noch händeringend Interviewer. Der Job ist scheinbar wenig attraktiv, weil die gezahlte Entschädigung als zu niedrig und der Aufwand dafür als zu hoch eingeschätzt wird. Das berichten übereinstimmend Vertreter der kommunalen Spitzenverbände. Foto: Jens Büttner dpa/lni +++(c) dpa - Bildfunk+++

পূর্ব এবং পশ্চিম জার্মানির একত্রীকরণের পর এই প্রথম গোটা জার্মানিতে শুরু হলো আদমশুমারি৷ ১৯৯০ সালের আগে পূর্ব জার্মানিতে লোকসংখ্যা গণনার কাজটি হয়েছিল ১৯৮১ সালে৷ আর পশ্চিম জার্মানিতে তা করা হয়েছিল ১৯৮৭ সালে৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্তির পর এর বেশ কিছু নিয়ম কানুন অন্যান্য দেশের মতো জার্মানিকেও পালন করবার কথা৷ প্রতি ১০ বছর অন্তর আদমশুমারি করা এমনই সে নিয়ম৷ তবে এই নিয়মটি কেবল যে ইউরোপীয় ইউনিয়নেরই রয়েছে তাই নয়, জাতিসংঘের দিক থেকে রয়েছে একই আহ্বান৷ কিন্তু নানা কারণে এই বিশাল যজ্ঞটি শুরু করা যায়নি৷ তবে তা সোমবার থেকে শুরু হলো৷

জার্মানির কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান বিভাগ এই কাজটি শুরু করেছে৷ এ কাজে খরচ হচ্ছে প্রায় ৭১০ মিলিয়ন ইউরো৷

নানা ভাবে, অনেক পর্যায়ে এই আদমশুমারি অনুষ্ঠিত হবে৷ কোন কোন পর্যায়ে কেবল ইন্টারনেটের মাধ্যমেই এই শুমারিতে অংশ নেয়া যাবে৷ এ ছাড়া এই সকল কাজের জন্য ৮০ হাজার গণনাকারীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে৷ সেই সঙ্গে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা তো রয়েছেই৷

এই গণনার আওতায় জার্মানিতে বসবাসরত বিদেশিরাও রয়েছেন৷ সব মানুষের অবস্থান, জীবন-জীবিকা, বৈবাহিক অবস্থা, সন্তান, পড়া লেখা, শিক্ষা, আয়-রোজগারের মত সকল তথ্য থাকবে৷ তাছাড়া সরকারের সামাজিক সুবিধা, যেমন বেকার ভাতা কিংবা অবসর ভাতা নিয়ে যারা জীবন ধারণ করছেন, তাদের সঠিক পরিসংখ্যানও পাওয়া যাবে এতে৷

এই গণনা বিষয়ে আদমশুমারি বিষয়ক কমিশনার গ্যার্ট ভাগনার আশ্বাস দিয়ে বলেন, সরকারের অন্য কোন পরিদপ্তরের কাছে সংগ্রহ করা তথ্য-উপাত্ত হস্তান্তর করা হবেনা৷ এসব তথ্য রাখা হবে বিশাল কম্পিউটার সার্ভারে, যাতে থাকবে কঠিন কঠোর ফায়ারওয়াল৷ এক কথায় যা সুরক্ষিত৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়