1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘‘আজ জাতি দুই মেরুতে বিভক্ত’’

সারা দেশে নির্বাচনের কোনো বাতাস বইছে না, নাই কোনো মাইকিং, নাই কোনো প্রচার মিছিল৷ মোটকথা বাংলাদেশে ভোটের যে চিরাচরিত আমেজ থাকে তা নির্বাচনি মাঠে নাই৷ এভাবেই লিখেছেন পাঠক নবী নেওয়াজ৷

Bangladesch Dhaka Soldaten Armee Militär Soldat

ফাইল ফটো

তাঁর ইমেলের পরের কথাগুলো এরকম, ‘‘আজ জাতি দুই মেরুতে বিভক্ত৷ সহিংসা, গুপ্তহত্যা, জ্বালাও-পোড়াও দৈনন্দিন রাজনীতির কর্মসূচি৷ ৫ জানুয়ারির একদলীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার পুলিশ, ব়্যাব, বিজিবি এবং সেনাবাহিনী সারাদেশে মোতায়েন করে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের দলে দলে জেলে পুরছে৷ ঢাকা সমগ্র দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন! সাধারণ মানুষ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে!

পরের ইমেলটি পাঠিয়েছেন নিয়মিত বন্ধু সুভাষ চক্রবর্তী৷ তিনি লিখেছেন, বর্ষ বিদায় আসন্ন, আর কয়েকদিন পরেই আমরা বরণ করে নেব নতুন বছরকে৷ ২০১৩ সালে আমরা ডয়চে ভেলের অগণিত পাঠক ডয়চে ভেলের অনিন্দ্যসুন্দর ওয়েবসাইট থেকে অনেক কিছু পেয়েছি, জেনেছি অনেক অজানা তথ্য, সব মিলে ভরে গেছে আমাদের মন৷ আর তাই আগামী বছরেও আমরা থাকবো ডয়চে ভেলের সাথে৷ জানবো আরও অনেক কিছু, যার মধ্যে মূল আকর্ষণ অবশ্যই ব্রাজিলে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপ ফুটবলের জমকালো আসর, এছাড়া আছে শীতকালীন অলিম্পিক৷

'জার্মানি ইউরোপ' পাতায় 'বড়দিন নিয়ে জার্মানদের রয়েছে নিজস্ব ঐতিহ্য' লেখাটি বেশ ভালো লাগলো৷ তেমনি ভালো লেগেছে খেলার পাতার পরিবেশনাগুলো৷ জার্মানির নতুন মহাজোট সরকারের সামনে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রের কোন কোন বিষয়গুলি অগ্রাধিকার পাবে – এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত জানার অপেক্ষায় রইলাম৷ সুভাষ চক্রবর্তী, নতুন দিল্লি থেকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তার ইমেল শেষ করেছেন৷

এবার একটি অভিযোগ পত্র৷ নাটোর থেকে বন্ধু রাজীব কেন্দুয়ার বন্ধু রাসেল শিকদার সম্পর্কে কিছু কথা লিখেছেন৷ রাজীব আমাদের কাছে এর সমাধান চেয়েছেন৷

আপনাদের দুজনের মধ্যে কি হয়েছে আমরা জানি না তাছাড়া এসব ব্যাপারে আমাদের কিছু বলা উচিতও নয়৷ আমরা বন্ধুদের কাছে অনুরোধ করবো, ডয়চে ভেলের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদন, টেলিভিশন অনুষ্ঠান এবং ফেসবুক সম্পর্কে কোনো মন্তব্য পরামর্শ বা কোনো প্রস্তাব থাকলে জানাবেন বন্ধুরা৷ আমরা আনন্দের সাথে আপনাদের সেসব প্রশ্নের জবাব দেবার চেষ্টা করবো৷ তবে ব্যক্তিগত বা আক্রমণাত্মক কোনো প্রশ্নের জবাব দিতে আমরা অপারগ, আন্তরিকভাবে দুঃখিত৷

ডা. হান্নান লিখেছেন, অন্বেষণ দেখছি৷ কয়েকটি পর্বই আমার ভাল লেগেছে৷ ফেসবুকে বন্ধু সোহেল রানার ল্যাপটপ দেখলাম ভাল লাগল৷ আবার কি এ ধরনের বড় পুরস্কার দিয়ে কুইজ আয়োজন করবেন? আর হ্যাঁ বাংলাদেশের তরতাজা গুরুত্বপূর্ণ ভিডিও সংবাদ পাঠালে গ্রহণ করবেন কি? আগামী বছরে চায়না বেতারের আমন্ত্রণে আমার চীন সফর হতে পারে৷ সেখান থেকে একটি ল্যাপটপ ও ভিডিও ক্যামেরা ক্রয় করার চিন্তা করছি৷ আপনাদের পুরস্কারের আশা ছেড়ে দিয়েছি৷ আমি নিশ্চিত বুঝতে পারছি আপনারা আমাকে কোনোদিনও পুরস্কার দেবেন না৷ হয়তো আপনাদের কাছে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে৷ পাবনার বন্ধু ডা. এস এম এ হান্নানের লেখা ইমেলের বক্তব্য হুবহু তুলে দেওয়া হলো এখানে৷

ভাই হান্নানের প্রথম প্রশ্নের উত্তরে জানাই, আবার কখনো কুইজের পুরস্কার হিসেবে ল্যাপটপ দেওয়া যেতেই পারে৷ আপনার দ্বিতীয় প্রশ্নের উত্তর, আপনারা সবাই জানেন বাংলাদেশ থেকে যে কোনো ধরণের অর্থাৎ ছবি, ভিডিও এবং রিপোর্ট পাঠানোর জন্য ঢাকায় আমাদের কয়েকজন সংবাদদাতা রয়েছেন৷ আর হ্যাঁ, পুরস্কারের আশা ছেড়ে দেবেন না৷ কারণ ভাগ্যদেবী সুপ্রসন্ন হলে আপনি পুরস্কার অবশ্যই পাবেন৷ আমাদের পুরস্কার বিজয়ীদের ফাইলে দেখা যাচ্ছে আপনি আগে রেডিও পুরস্কার পেয়েছেনও৷ কাজেই আশাহত হবার কারণ নেই!

মতামত জানিয়ে লেখার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ৷ সবাই ভালো থাকবেন আর আমাদের সঙ্গে থাকবেন এই প্রত্যাশাই করছি৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন