1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আজহারের ফাঁসি: জামাতের হরতাল, নিরব অনলাইন

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াত নেতা এটিএম আজহারুল ইসলামকে মৃত্যুদণ্ড দেয়ায় দু’দিনের হরতাল ঘোষণা করেছে জামায়াত৷ তবে এই নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে তেমন আলোচনা নেই৷

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে রংপুর অঞ্চলে ১২২৫ ব্যক্তিকে গণহত্যা, চারজনকে হত্যা, ১৭ জনকে অপহরণ, একজনকে ধর্ষণ, ১৩ জনকে আটক, নির্যাতন ও গুরুতর জখম এবং শত শত বাড়ি-ঘর লুণ্ঠন ও অগ্নিসংযোগের মতো ছয়টি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ রয়েছে এটিএম আজহারের বিরুদ্ধে৷ মঙ্গলবার আদালত রায় ঘোষণার পর তাই ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় পাঠকদের কাছে প্রশ্ন করা হয়, ‘‘এই রায়ে আপনার প্রতিক্রিয়া কী?''

বলাবাহুল্য, এই প্রশ্ন করার পর তিন ঘণ্টায় প্রতিক্রিয়া এসেছে সামান্যই৷ নাজমুল রানা লিখেছেন, ‘‘বিচার ভালো৷ শুধু মানবতা বিরোধী অপরাধ নয়৷ সব অপরাধের বিচার চাই৷''

ডয়চে ভেলের আরেক পাঠক রাইসুল ইসলাম রাসেল তাঁর দীর্ঘ মন্তব্যের শুরুতে লিখেছেন, ‘‘ফাসিঁর রায় শুনে এখন আর প্রতিক্রিয়া দেখাতে ইচ্ছে করে না৷ এগুলো মালশি হয়ে গেছে বলতে পারেন৷'' শাহ নেওয়াজ অবশ্য মনে করেন, ‘‘এটা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ছাড়া আর কিছুই না৷''

টুইটারে করা একই প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন হাসান রহমান মার্জান৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘রায়ে সন্তোষ৷ এ রায়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে৷ তবে একের পর এক রায় হলেও রায় কার্যকর না হওয়াতে উদ্বিগ্ন৷'' ডয়চে ভেলের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি লিখেছেন:

এদিকে, আজহারের ফাঁসির রায়ের প্রতিবাদে বুধবার ও বৃহস্পতিবার হরতাল ঘোষণা করেছে জামায়াতে ইসলামী৷ দলটির ভারপ্রাপ্ত আমীর মকবুল আহমাদ এক বিবৃতিতে দাবি করেছেন, জামায়াত নেতা এটিএম আজহারুল ইসলাম ‘সরকারের ধারাবাহিক ষড়যন্ত্রের' শিকার৷

উল্লেখ্য, একাত্তরে আজহার ছিলেন জামায়াতের সেই সময়ের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্র সংঘের রংপুর জেলা কমিটির সভাপতি৷ পদাধিকার বলেই আল-বদর বাহিনীর রংপুর শাখার কমান্ডারও ছিলেন তিনি৷

সংকলন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়