1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আগামী সপ্তাহে ওবামা-নেতানিয়াহু বৈঠকের সম্ভাবনা

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের আবারো বৈঠকের চেষ্টা চলছে৷ পূর্ব জেরুসালেম ইস্যুতে গত মার্চ থেকে দুই দেশের সম্পর্কের টানাপোড়েন কমাতে এই বৈঠকের উদ্যোগ৷

default

ফাইল ফটো

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু আগামী সপ্তাহে ওয়াশিংটন সফরে যেতে পারেন৷ বর্তমানে ব্যক্তিগত কাজে ইসরায়েল সফররত হোয়াইট হাউসের চীফ অফ স্টাফ রাম ইমানুয়েল বুধবার নেতানিয়াহুকে এসংক্রান্ত আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণ জানাতে পারেন৷

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, বুধবার জেরুসালেমে নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠক করবেন ইমানুয়েল৷ মূলত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরায়েলের মধ্যকার বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা হবে তাদের মধ্যে৷

ওবামা-নেতানিয়াহুর সম্ভাব্য বৈঠক নিয়ে বিস্তর আলোচনা শোনা যাচ্ছে৷ কারণ গত মার্চে পূর্ব জেরুসালেমে বসতি নির্মাণের ঘোষণা নিয়ে দুই দেশের সম্পর্কে খানিকটা চিড় ধরে৷ সেসময় ইসরায়েল সফররত মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে দৃশ্যত একরকম অপমান করে ইসরায়েল৷ এরপর নেতানিয়াহুর সঙ্গে ওবামার বৈঠক হলেও তা খুব একটা সুখকর ছিলনা৷ এর আগে কোনো ইসরায়েলি শীর্ষ নেতা হোয়াইট হাউসে এমন শীতল অভ্যর্থনা পান নি৷ তাই সম্ভাব্য বৈঠকের মার্কিন উদ্যোগকে অনেকে দুই দেশের সম্পর্কের উন্নতির ইঙ্গিত হিসেবে ধরে নিচ্ছে৷

অবশ্য, ওবামা-নেতানিয়াহু বৈঠক ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের আরেক খবর নিয়ে আলোচনা শোনা যাচ্ছে৷ মঙ্গলবার রাতেও গাজায় কমপক্ষে দু'টি বিমান হামলা চালায় ইসরায়েল৷ এতে প্রাণহানি না ঘটলেও গুরুতর আহত হয়েছেন দু'জন৷ ইসরায়েলি সেনাবাহিনী এই হামলার দায় স্বীকার করে বলেছে, সন্ত্রাসীদের সুড়ঙ্গ পথের উপর এই হামলা চালানো হয়েছে৷ একইসঙ্গে গাজা সীমান্ত থেকে ইসরায়েলের দিকে মর্টার হামলা চালানো হয়েছে বলেও দাবি সেনাদের৷ তবে, এই প্রসঙ্গে গাজার তরফ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি৷

এদিকে, বৃহস্পতিবার প্যারিসের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী৷ সেখানে উন্নত বিশ্বের ৩০টি দেশের সমন্বয়ে গঠিত অর্থনৈতিক সহযোগিতা এবং উন্নয়ন বিষয়ক এক সংগঠনে যোগদানের আমন্ত্রণ পাবেন নেতানিয়াহু৷ তবে, প্যারিসে এবার খানিকটা বিরূপ অবস্থার মধ্যে পড়তে পারেন তিনি৷ বিশেষ করে, ইতিমধ্যেই সেখানে ইসরায়েলের নীতি বিরোধী বিভিন্ন সভা-সমাবেশের খবর শোনা যাচ্ছে৷

প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং জাতিসংঘ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে৷ কিন্তু ইসরায়েলের বর্তমান সরকার ১৯৬৭ সালের সীমানাকে চরম অবজ্ঞা করে চলায় সংশ্লিষ্ট এলাকায় ক্ষোভ বেড়েই চলেছে৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়