1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আইরিশ জাহাজটিও আটকে দিল ইসরায়েল

ত্রাণ নিয়ে গাজায় যাওয়ার সময় একটি তুর্কি নৌবহরে হামলার পর ইসরায়েল এবার একটি আইরিশ জাহাজ আটকে দিয়েছে, বলে জানিয়েছেন জাহাজটিকে সমর্থন করছে এমন একটি গোষ্ঠীর এক মুখপাত্র৷ তবে সেখানে কোনো সংঘাতের ঘটনা ঘটেছে কিনা তা জানা যায়নি৷

default

এরকম পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে কিনা জানা যায়নি

আইরিশ এই জাহাজটির নাম ‘এম ভি ব়্যাচেল কোরি'৷ মার্কিন এক মহিলার নামে রাখা হয়েছে এই নাম৷ ২০০৩ সালে গাজায় ইসরায়েলের একটি বুলডোজারের আঘাতে মারা যান মার্কিন ঐ মহিলা৷ গাজার মানুষের জন্য খাবার আর কিছু প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে জাহাজটি গাজা যাচ্ছিল৷

এর আগে ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আভিগডোর লিবামান স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, তাঁরা জাহাজটিকে আটকাবেন৷ উল্লেখ্য, এর আগে সোমবার তুরস্কের একটি নৌবহরে হামলা চালায় ইসরায়েলি কমান্ডোরা৷ এতে তুরস্কের নয় নাগরিক নিহত হন৷ ফলে তুরস্কের সঙ্গে ইসরায়েলের সম্পর্কে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়৷ পুরো তুরস্ক জুড়ে নাগরিকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন৷ সরকারের পক্ষ থেকেও বেশ কড়া ভাষায় এর প্রতিবাদ জানানো হয়৷ প্রধানমন্ত্রী রেচেপ তাইয়িপ এর্দোয়ান শুক্রবার পবিত্র গ্রন্থ বাইবেল থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে তাঁর ক্ষোভ প্রকাশ করেন৷ তিনি বলেন, বাইবেলে হত্যা নিষিদ্ধ হলেও ইসরায়েলিরা তা মানছেনা৷

এদিকে আরেকটি রক্তাক্ত ঘটনা এড়াতে আইরিশ জাহাজটিকে দিক পরিবর্তন করে ইসরায়েলের আশদদ্ বন্দরে নোঙর করার আহ্বান জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র৷ দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র মাইক হ্যামার এই আহ্বান জানিয়ে বলেছিলেন, গাজার মানুষ যেন আরও বেশি সাহায্য পায়, সেজন্য ইসরায়েল, ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ ও আন্তর্জাতিক বিশ্বের সঙ্গে জরুরি ভিত্তিতে কাজ করে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র৷ তাই যতক্ষণ না একটা সমাধান পাওয়া যাচ্ছে, ততক্ষণ সবার নিরাপত্তার খাতিরেই কাজ করা উচিত বলে হ্যামার মনে করেন৷ তিনি বলেন, ইসরায়েলের গাজা অবরোধ কোন চিরস্থায়ী সমাধান নয়৷ এই নীতি অবশ্যই পরিবর্তন করতে হবে৷

এছাড়া আইরিশ ঐ জাহাজের প্রতি সংযম প্রদর্শন করতে ইসরায়েলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন আয়ারল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইকেল মার্টিন৷

উল্লেখ্য, গাজা এলাকাটি ২০০৭ সালে হামাস গোষ্ঠীর নিয়ন্ত্রণে চলে যাওয়ার পর থেকে ইসরায়েল স্থল ও সাগরপথে অবরোধ গড়ে তোলে৷ তখন থেকেই ইসরায়েল সমুদ্রপথে কোনো জাহাজকে গাজায় ঢুকতে দেয়না৷ ইসরায়েলের আশঙ্কা, এসব জাহাজে করে হামাস'এর জন্য অস্ত্র পাচার করা হতে পারে৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়