1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আইভরি কোস্টে বাগবোর বাড়িতে ওয়াতারা সমর্থকদের আক্রমণ

বহির্বিশ্বের চোখে আইভরি কোস্টের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী আলাসানে ওয়াতারার সমর্থকরা দেশটির বেশিরভাগ অংশের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে৷ এই মুহূর্তে লরাঁ বাগবোর বাড়ির সামনে ব্যাপক সংঘর্ষের খবর পাওয়া যাচ্ছে৷

default

লরাঁ বাগবো

সবশেষ পরিস্থিতি

রাজধানী আবিজানের কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে বার্তা সংস্থা এএফপি বলছে, লরাঁ বাগবো'র প্রেসিডেন্ট ভবনের আশেপাশে ব্যাপক গোলাগুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে৷ কয়েক ঘন্টা আগে থেকে এই অবস্থা শুরু হয়েছে বলে এএফপি বলছে৷ বাগবোর সমর্থক এলিট বাহিনী প্রেসিডেন্ট ভবন ঘিরে রেখেছে বলে জানা গেছে৷ এদিকে দেশটির সরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের দখল নিয়ে নিয়েছে ওয়াতারা সমর্থকরা৷ আর ওয়াতারা এক বিবৃতিতে, দেশটির সকল সীমান্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন৷ এছাড়া আগামী রোববার পর্যন্ত রাত্রীকালীন কারফিউ জারি করেছেন৷

Elfenbeinküste Alassane Ouattara

আলাসানে ওয়াতারা

আর দেশটির প্রধান বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে জাতিসংঘ বাহিনী৷ জানা গেছে, বিমানবন্দরের দায়িত্বে থাকা বাগবো'র সমর্থক বাহিনীর প্রধান, বাগবোর পক্ষ ত্যাগ করে জাতিসংঘ বাহিনীর কাছে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছেন৷

বাগবোর সঙ্গ ত্যাগ

গত কয়েকদিনে সরকারি ও নিরাপত্তা বাহিনীর বেশ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বাগবোর পক্ষ ত্যাগ করেছেন বলে জানা গেছে৷ আর দক্ষিণ আফ্রিকা বলছে, আইভরি কোস্টের শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা জেনারেল ফিলিপে মাঙ্গু আবিজানের দক্ষিণ আফ্রিকা দূতাবাসে আশ্রয় চেয়েছেন৷ তার মানে তিনিও বাগবোর পক্ষ ত্যাগ করেছেন৷ মূলত এসব কারণেই বাগবো অনেকটা দুর্বল হয়ে পড়েছেন৷ এই সুযোগে মাত্র চারদিন আগে অভিযান শুরু করে ওয়াতারার সমর্থকরা দেশটির বেশিরভাগ অংশই দখল করে নিয়েছে৷

প্রেক্ষাপট

বর্তমান অবস্থার শুরুটা গত নভেম্বর মাসে৷ সেসময় দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয়েছিল৷ তাতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন লঁরা বাগবো, যিনি এর আগে প্রেসিডেন্ট ছিলেন৷ আর অন্যজন হলেন আলাসানে ওয়াতারা৷ ঐ নির্বাচনে ওয়াতারার কাছে বাগবো হেরে যান বলে জাতিসংঘ সহ পশ্চিমা বিশ্ব বলছে৷ কিন্তু বাগবো সেটা না মেনে নিজেকেই জয়ী বলে ঘোষণা করে ক্ষমতায় থেকে যান৷ ফলে আজকের পরিস্থিতির তৈরি হয়েছে৷ ইতিমধ্যে দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে শত শত লোক মারা গেছে বলে জানা গেছে৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: ফাহমিদা সুলতানা

নির্বাচিত প্রতিবেদন