1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে কঠোর হামলার ঘোষণা ওবামার

জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট-এর (আইএস) বিরুদ্ধে ‘কঠোর' যুদ্ধের নির্দেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা৷ হামলার পরিসর বাড়িয়ে প্রথমবারের মতো সিরিয়ায় আইএস-এর অবস্থানের ওপর বিমান হামলার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি৷

বুধবার হোয়াইট হাউস থেকে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া এক ভাষণে আইএস বা আইসিসি-এর বিরুদ্ধে নেয়া কৌশল তুলে ধরেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ পাশাপাশি ইরাকে গোষ্ঠীটির অবস্থানের ওপর হামলা জোরদার করার নির্দেশ দেন৷ ওবামা বলেন,‘‘ইসলামিক স্টেট, যারা দুই মার্কিন সাংবাদিকের শিরশ্ছেদ করেছে এবং ইরাক ও সিরিয়ার বেশ কিছু জায়গা দখল করে রেখেছে তারা প্রকৃতই নৃশংস কাজ করেছে৷ তারা কেবল অপহৃতদেরই হত্যা করেনি৷ হত্যা করেছে শিশুদের৷''

ভাষণে তিনি বলেন, ‘‘আমেরিকার জন্য হুমকি সৃষ্টিকারী কোনো গোষ্ঠী কোনো নিরাপদ স্বর্গ খুঁজে পাবে না৷ ইরাকের আইএস-এর পাশাপাশি সিরিয়ার আইএসআইএল-এর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে আমি কোন দ্বিধা করব না৷’’ এক সিনিয়র মার্কিন প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সিরিয়ায় জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সরাসরি অভিযান চালাতে মার্কিন সেনাবাহিনী প্রস্তুত৷

সিরিয়ার গোষ্ঠীটির অবস্থানের ওপর হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়ে আইএস-কে ‘নিমূর্ল করার' বিষয়টিকে যুক্তরাষ্ট্র গুরুত্ব দিয়ে দেখতে শুরু করেছে বলে মনে করছেন পশ্চিমা বিশ্লেষকরা৷ ব্যাপকভাবে প্রত্যাশিত ওই ভাষণে আইএস-এর পুরনো নাম ব্যবহার করে ওবামা বলেন, ‘‘আমাদের উদ্দেশ্য পরিষ্কার: ব্যাপকভিত্তিক এবং দীর্ঘমেয়াদী সন্ত্রাস-বিরোধী কৌশলের মাধ্যমে আমরা আইএসআইএল-কে দুর্বল করে পরিশেষে ধ্বংস করব৷’’

Wales NATO-Gipfel 2014 in Newport Barack Obama

জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে আইএস-এর বিরুদ্ধে নেয়া কৌশল তুলে ধরেন ওবামা

ভাষণে তিনি জানিয়েছেন, ইরাকের শুধু কয়েকটি বিচ্ছিন্ন এলাকায় আইএস'র বিরুদ্ধে বিমান হামলা না চালিয়ে হামলার লক্ষ্যস্থল আরো বাড়াবেন তিনি৷

এছাড়া আইএস-এর বিরুদ্ধে লড়াইরত ইরাকি বাহিনীকে সাহায্য করতে দেশটিতে আরো ৪৭৫ জন সামরিক উপদেষ্টা পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছেন ওবামা৷ ইতোমধ্যেই ইরাকে অবস্থান করা যুক্তরাষ্ট্রের এক হাজার সামরিক উপদেষ্টার সঙ্গে যোগ দেবেন এই নতুন উপদেষ্টারা৷ তবে তাঁরা কেউ সরাসরি লড়াইয়ে অংশ নেবেন না৷

রিপাবলিকানরা ওবামার এই ভাষণকে স্বাগত জানালেও আইএস-এর বিরুদ্ধে আগেই ওবামার শক্ত অবস্থান নেয়া উচিত ছিল বলে মন্তব্য করেছেন৷ হাউজ স্পিকার জন বোয়েনার বলেছেন, ‘‘ইরাকে অবস্থানরত মার্কিন ও স্থানীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তা এবং সিরিয়ান ন্যাশনাল কোয়ালিশনকে প্রশিক্ষণ দেয়ার ব্যাপারটিতে আমার সমর্থন রয়েছে৷ তবে আমার মতে এর ফলে প্রত্যাশিত সাফল্য আসতে অনেক বছর লেগে যাবে৷''

এদিকে ওবামার এই ঘোষণার পর পশ্চিমা সমর্থিত সিরিয়ার বিদ্রোহী গোষ্ঠী বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, আইএসআইএল-এর বিরুদ্ধে ওবামার এই পদক্ষেপের পরিকল্পনায় তাদের সমর্থন রয়েছে৷ সিরিয়ান ন্যাশনাল কোয়ালিশন ওবামার এই প্রস্তাবে সমর্থন দেয়ার জন্য মার্কিন কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে৷

এপিবি/এসি (এপি, এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়