1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আইএসের সর্বশেষ হুমকিকে আমলেই নিচ্ছে না সরকার

বাংলাদেশে নতুন করে সন্ত্রাসী হামলা চালানোর প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)৷ সংগঠনটির অনলাইন ম্যাগাজিন ‘দাবিক’ এর সর্বশেষ সংস্করণে এ দাবি করা হয়েছে৷

আইএসের ম্যাগাজিনের নিবন্ধ নিয়ে ভারতের সংবাদ সংস্থা পিটিআই এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের মতো দেশে আইএস তাদের কৌশলগত অবস্থান বাড়ানোর চেষ্টা করছে৷ ম্যাগাজিনে বাংলাদেশ বিষয়ে দীর্ঘ বক্তব্য রয়েছে৷

তবে আইএসের এই হুমকিকে আমলেই নিচ্ছে না বাংলাদেশ সরকার৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান খান কামাল ডয়চে ভেলেকে এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেন, ‘‘বাংলাদেশে আইএস বলে কিছু নেই৷ কয়েকজন জেএমবি জঙ্গি জামিনে ছাড়া পেয়ে নানা ধরনের হুমকি দেয়৷ এসব ফালতু বিষয়৷'' বাংলাদেশের প্রস্তুতির বিষয়ে অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে৷ কোনো ধরনের শঙ্কা নেই৷''

দাবিক এর ১২তম সংস্করণে বাংলাদেশ নিয়ে ঐ নিবন্ধের লেখক আবু আবদির রহমান আল-বাঙালি৷ নিবন্ধে বাংলাদেশে চারটি হামলার দায় স্বীকারের দাবি করেছে আইএস৷ এতে বলা হয়, খিলাফতের সেনাদের সম্পৃক্ত একটি নিরাপত্তা সেল ইটালিয়ান নাগরিক তাবেলা সিজারকে খুন করেছে৷ রাজধানী ঢাকার গুলশানের এক রাস্তায় গুলি করে ঐ বিদেশিকে হত্যা করা হয়৷ এর কয়েক দিনের মাথায় রংপুরে ঐ টিম এক জাপানি নাগরিককে খুন করে৷ ঢাকায় শিয়া সম্প্রদায়ের একটি মসজিদে (হোসেনি দালান) হামলা চালিয়ে একজনকে হত্যা ও প্রায় ১০০ জনকে আহত করে আইএস৷

এছাড়া ঢাকায় এক তল্লাশিচৌকিতে পুলিশের ওপর হামলাও আইএস করেছে বলে নিবন্ধে দাবি করা হয়৷ এতে বলা হয়, পরপর এসব হামলা ক্রুসেডর রাষ্ট্রের জনগণের বড় ক্ষতির কারণ হয়েছে৷ যে কারণে অনেক দেশ বাংলাদেশে তাদের নাগরিক, কূটনীতিক, পর্যটকদের চলাচল সীমিত করতে বাধ্য হয়েছে৷ এখনো তারা ভীতিকর অবস্থার মধ্যে দিন পার করছে৷ নিবন্ধে বলা হয়েছে, আইএস নতুন করে আরো হামলা চালানোর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে৷ আওয়ামী লীগের অসাম্প্রদায়িক সরকার ধারাবাহিকভাবে তথ্য বিভ্রাট ঘটাচ্ছে এবং ‘ব্লেম গেম' খেলছে৷

আন্তর্জাতিক সম্পর্কের বিশ্লেষক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহেদুজ্জামান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘বাংলাদেশের পরিস্থিতি এমন নয় যে আইএস এখানে এসে এতবড় হামলা চালাবে৷ আমরা আরব বিশ্ব থেকে অনেকটাই দূরে৷ আমাদের যে ধরনের ঝুঁকি আছে, সেটা ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়াসহ সব মুসলিম দেশগুলোতেই আছে৷ তবে এসব হুমকি উড়িয়ে দিলে হবে না৷ আমাদের সতর্কতার সঙ্গে তাদের হুমকির বিষয়গুলো খতিয়ে দেখতে হবে৷''

দাবিক এর নিবন্ধে বাংলাদেশে নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) প্রশংসা করে এর প্রতিষ্ঠাতা মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া শায়খ আবদুর রহমানকে ‘শহিদ মুজাহিদ' আখ্যা দেয়া হয়েছে৷ নিবন্ধে শায়খ আবদুর রহমান ও জেএমবির প্রশংসা করে বলা হয়, এর ফলে ইউরোপীয় উপনিবেশ ও হিন্দু সংস্কৃতির চাপে যে ভূখণ্ড শত শত বছর ‘শিরক' ও ‘বিদাতে' ডুবে ছিল, সেখানকার মুসলমানরা একটা আশার আলো দেখেছিল৷

আইএসের সাময়িকীতে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীকে ‘মুরতাদ' বলে আখ্যায়িত করা হয়৷ জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর একটি ছবি দিয়ে তাতে লেখা হয়েছে, ‘মুরতাদপ্রধান'৷ নিবন্ধের শেষাংশে তারা বলেছে, তথাকথিত খিলাফতের সেনারা বেঙ্গলে তাদের প্রভাব বিস্তার করছে এবং তারা সন্ত্রাসের মাধ্যমে আতঙ্ক ছড়িয়ে যাবে৷

বাংলাদেশের প্রতি ‘ইসলামিক স্টেট’ সত্যিই কী আগ্রহী? আপনার মতামত লিখুন নীচের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়