1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

অ্যামিউজমেন্ট পার্কের ছবি তোলেন স্তেফানো চেরিও

ইটালির আলোকচিত্রশিল্পী৷ ছবি তোলেন অ্যামিউজমেন্ট পার্ক বা বিনোদন পার্কের৷ তাও আবার সন্ধ্যার মুখে, মানুষজন ছাড়া, ফ্ল্যাশ দিয়ে তোলা ছবি৷ আদিভৌতিক সব ছবি৷

ভিডিও দেখুন 02:40

অ্যামিউজমেন্ট পার্কের ছবি তোলেন স্তেফানো চেরিও

কোনো বিনোদন পার্কে গভীর রাত্রে গেলে দেখবেন চতুর্দিক নীরব-নিস্তব্ধ, যেন ভূতে পাওয়া অবস্থা...

অপরদিকে দিনের বেলা এখানে হাজার মানুষের ভিড়, নাগরদোলার চক্কর, ছোটদের কলরোল – সম্পূর্ণ অন্য অবস্থা৷

সেই অবস্থার ছবি তোলার জন্য স্তেফানো চেরিও বিভিন্ন বিনোদন পার্কে যান, যেমন চিনেচিয়েতা ওয়ার্ল্ড নামের অ্যামিউজমেন্ট পার্কটিতে৷ পার্কটি রোমের কাছে, চেরিও যেমন ইটালির মানুষ৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

স্তেফানো বলেন, ‘‘এই পার্কগুলোতে যা আমার বিশেষভাবে ভালো লাগে, তা হল ‘ভর্তি' আর ‘খালি'-র মধ্যে আশ্চর্য পার্থক্য৷ মানুষজন না থাকলে পার্কগুলোকে পুরোপুরি পরাবাস্তব বলে মনে হয়৷ এমনকি তার স্থাপত্য, যা আসলে সিনেমার সেটের মতো কাল্পনিক কিন্তু মানুষের তৈরি, মানুষ না থাকলে সেটাও একটা অর্থহীন, পরাবাস্তব কাঠামোর রূপ ধারণ করে৷''

সন্ধ্যা হবার মুখে স্তেফানো চেরিও ছবি তোলার বিষয় খুঁজতে শুরু করেন৷ পুরোপুরি অন্ধকার হয়ে গেলে হাতে টর্চ নিয়ে বিনোদন পার্কে চলাফেরা করতে হয়৷ ছবি তোলার সময় চেরিও একটি বিশেষ ফ্ল্যাশ ব্যবহার করেন, যার ফলে ছবির পটভূমি সম্পূর্ণ অন্ধকার থাকে৷

স্তেফানো বলেন, ‘‘ছবিতে কোনো মানুষজন নেই বলে অনেকের একটু বিষাদপূর্ণ লাগে৷ অন্যরা আবার এটাকে বাস্তবধর্মী বলে মনে করেন৷ অথবা ছবিতে যে ‘আয়রনি' বা ব্যঙ্গ আছে, সেটা তারা বুঝতে পারেন৷ শিল্পকলা বোঝার পথ শুধু একটা নয়৷ ‘এর মানে শুধু এই হতে পারে' – এতে আমি বিশ্বাস করি না৷ শিল্পকলা চিন্তাকে বিভিন্ন খাতে বইয়ে দেবে৷''

বিনোদন পার্কের হৈহুল্লোড় সকলের পছন্দ না হলেও, স্তেফানো চেরিও-র ছবিগুলো দেখলে যেন মনে হয়, মানুষজন থাকলেই ভালো হতো৷৷

ইয়ানা ও্যরটেল/এসি

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়