1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

অ্যাপের মাধ্যমে বাল্যবিয়ে বন্ধ করল পুলিশ

রবিবার রাত ৮টা ৯ মিনিটে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় একটি মোবাইল এসএমএস আসে৷ এতে একটি বাল্যবিয়ে বন্ধে পুলিশের সহায়তা চাওয়া হয়৷ দুই ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে বিয়ে বন্ধ করে দেয় পুলিশ৷

বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) চালু করা বাংলাদেশ পুলিশের অ্যাপ ‘বিডি পুলিশ হেল্প লাইন' ব্যবহার করে মোবাইল বার্তাটি পাঠানো হয়৷ ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি মশিউর রহমান বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, সদর থানার বড়গাঁও ইউনিয়নের মধ্যপাড়া গ্রামের ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে একই উপজেলার রুহিয়া এলাকার আবু হোসেনের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল৷ রাতে বরযাত্রী বিয়ে বাড়িতে গিয়েছিল৷ ‘‘ম্যাসেজটি পাওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা নিয়ে বাল্য বিবাহটি বন্ধ করা হয়,'' বলে জানান মশিউর রহমান৷

পুলিশের অ্যাপটি বৃহস্পতিবার উদ্বোধন করেন আইজিপি একেএম শহীদুল হক৷ এটি ব্যবহার করে অপরাধ ও অপরাধী সম্পর্কিত যে-কোনো তথ্য সরাসরি সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)-র কাছে পাঠানো যাবে বলে জানান তিনি৷ তথ্যের পাশাপাশি ছবি, ভিডিও ও ভয়েস মেসেজও পাঠানো যাবে৷

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার পাশাপাশি বার্তাটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে চলে যাবে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছেও৷ যেমন মহানগর পুলিশের ক্ষেত্রে এসি, ডিসি, পুলিশ কমিশনার এবং জেলার ক্ষেত্রে সার্কেল সহকারি পুলিশ সুপার, পুলিশ সুপার ও রেঞ্জ পুলিশও এসএমএস পাবেন৷ পুলিশ সদর দপ্তর পুরো বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করবে বলেও জানিয়েছেন পুলিশের আইজিপি৷

অ্যাপটি আপাতত ‘গুগল প্লে স্টোরে' পাওয়া যাচ্ছে৷ তবে শিগগিরই তা ‘অ্যাপ স্টোরেও' পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ প্রধান৷

পুলিশের এই অ্যাপ চালুর উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন অনেকে৷ গুগলের প্লে স্টোরে এখন পর্যন্ত ৯০ জন রিভিউ লিখেছেন৷ বেশিরভাগই উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন৷ তবে অ্যাপটিতে থাকা কিছু সমস্যার কথাও জানিয়েছেন কেউ কেউ৷ একজন ব্যবহারকারী অ্যাপটির উন্নয়নে একজন পেশাজীবী নিয়োগের প্রস্তাব করেছেন৷ আরেকজন ব্যবহারকারী, ভুল ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে অ্যাপটির অপব্যবহার না করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন৷

এদিকে, এই অ্যাপ প্রসঙ্গে মাহিন রহমান ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘আমরা তো ঘরপোড়া গরু, তাই ভয় হয়! শেষকালে না এটাকে আবার ‘থানায় বসেই ডিজিটাল ঘুষের হাতিয়ার' বানিয়ে ফেলে পুলিশ!!''

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়