1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের আগে মানবতার ডাকে সাড়া দিলেন তারকারা

আজ থেকে শুরু হয়েছে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন টেনিস৷ কিন্তু তার আগে রোববার অস্ট্রেলিয়ার বন্যার্তদের জন্য প্রদর্শনী ম্যাচ খেলতে কোর্টে নেমে পড়েন তারকা খেলোয়াড়রা৷

default

রড লেভার এরিনা

প্রতি বছর টেনিসের গ্র্যান্ড স্ল্যামের মৌসুমের শুরুটা হয় অস্ট্রেলিয়ান ওপেন দিয়ে৷ তবে এবার ওপেনের শুরুতে আলোচনার টেবিলে টেনিসের চেয়ে বন্যার কথাই বেশি এসেছে৷ অস্ট্রেলিয়ার বিশাল এলাকা এখন বন্যায় তলিয়ে গেছে৷ বন্যার্তদের সহায়তায় রোববার রড লেভার এরিনাতে নামলেন তারকা খেলোয়াড়রা৷ অসিদের দুই রং সবুজ এবং সোনালী এই দুই ভাগে ভাগ হয়ে তারা প্রদর্শনী ম্যাচ খেলেন৷ সবুজ দলের নেতৃত্ব দেন সাবেক টেনিস তারকা প্যাট্রিক রাফটার৷ তার দলে ছিলেন রাফায়েল নাদাল, অ্যান্ডি রডিক, কিম ক্লাইস্টার্স এর মত খেলোয়াড়রা৷ অন্যদিকে সোনালী দলের নেতৃত্ব ছিল সাবেক খেলোয়াড় লেইটন হিউটের কাছে৷ তার দলে ছিলেন রজার ফেডেরার, নোভাক ইয়কোভিচ, জাস্টিন হেনিনরা৷ তারকাদের এই সম্মেলন দেখতে ১৫ হাজার টিকিটের সবগুলোই বিক্রি হয়৷ এছাড়া এই প্রদর্শনী ম্যাচ থেকে এসেছে দেড় মিলিয়ন ডলার৷ এই অর্থ ব্যয় হবে কুইন্সল্যান্ডের বন্যার্তদের সহায়তার জন্য৷ এদিকে যার নামে কোর্ট সেই রড লেভার সুদুর ক্যালিফোর্নিয়া থেকে এক ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছেন৷ তাতে তিনি শুভেচ্ছা জানান খেলোয়াড়দের তাঁর জন্মস্থান কুইন্সল্যান্ডের পাশে এসে দাঁড়ানোর জন্য৷

Flash-Galerie Sportrückblick 2010

এবার নজর সবার নাদালের দিকে

এদিকে আজ থেকে শুরু হয়ে গেছে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের প্রতিযোগিতা৷ প্রথমদিনেই কোর্টে নামছেন গত বারের শিরোপাধারী ফেডেরার, অ্যান্ডি রডিক ও ২০০৮ সালের বিজয়ী নোভাক ইয়কোভিচ৷ আর মেয়েদের কোর্টে দীর্ঘদিন পর দেখা যাবে সাবেক অস্ট্রেলিয়া ওপেন বিজয়ী মারিয়া শারাপোভাকে৷ এছাড়াও আজ খেলবেন মেয়েদের সাবেক শীর্ষ বাছাই ভেনাস উইলিয়ামস৷

তবে এবারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে সকলের নজর থাকবে একজনের ওপর৷ তিনি শীর্ষ বাছাই রাফায়েল নাদাল৷ গত মৌসুমের প্রথম শিরোপাটি ফেডেরারের হাতে যাওয়ার পর বাকি তিনটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম এসেছে এই স্প্যানিশের হাতে৷ তাই এবারেরটি জিতলে ১৯৬৯ সালে রড লেভারের পর তিনিই হবেন টানা চারটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জেতা প্রথম খেলোয়াড়৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: জাহিদুল হক