1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

অলিম্পিক আয়োজনের প্রশ্নে জার্মানিতে গণভোট

হামবুর্গ ও বার্লিন শহর অলিম্পিক প্রতিযোগিতা আয়োজনের দৌড়ে অংশ নেবে কি না, তা নির্ভর করবে দুই শহরের মানুষের রায়ের উপর৷ সংশয়বাদীরা আশা করছেন, মানুষ এমন বিশাল কর্মযজ্ঞের বিরোধিতা করবে৷

একটা সময় ছিল, যখন অলিম্পিক বা বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পেলে দেশের মানুষ গর্বে-আনন্দে আত্মহারা হয়ে যেতেন৷ চলতি বছর ব্রাজিলের বিশ্বকাপের সময় দেখা গেছে অনেক মানুষের প্রতিবাদ-বিক্ষোভ৷ প্রশ্ন উঠছে, বড় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উপলক্ষ্যে অবকাঠামো নির্মাণের পেছনে যে কোটি কোটি ডলার ব্যয় করা হয়, তা কি দেশের মানুষের দীর্ঘমেয়াদি স্বার্থে অন্য খাতে ব্যয় করা উচিত নয়?

জার্মানির মতো শিল্পোন্নত দেশে সরাসরি এমন প্রশ্ন হয়তো উঠবে না৷ তা সত্ত্বেও অলিম্পিকের মতো প্রতিযোগিতা আয়োজনের দায়িত্ব নেবার প্রচেষ্টার আগে সাধারণ মানুষের সমর্থন চান উদ্যোক্তারা৷ বিশেষজ্ঞদের মতে, জার্মানিতে অলিম্পিক আয়োজনের ব্যয় দাঁড়াবে ২০০ কোটি ইউরো৷ সেই সঙ্গে শুধু আয়োজনের প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে চাই আরও ৫ কোটি ইউরো৷

২০২৪ অথবা ২০২৮ সালে অলিম্পিক প্রতিযোগিতা আয়োজনের কথা ভাবছে বার্লিন ও হামবুর্গ শহর৷ সেই চেষ্টা আদৌ চালানো উচিত কি না, চলতি বছরের ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে জার্মান অলিম্পিক স্পোর্টস ফেডারেশন বা ডিওএসবি৷ তার আগে অর্ধেকের বেশি শহরবাসীর সমর্থন আদায় করতে হবে৷ সোমবার, ১লা সেপ্টেম্বরের মধ্যেই এক প্রশ্নপত্র জমা দিতে হবে দুই শহরের কর্তৃপক্ষকে৷ তারপর ৬ই ডিসেম্বর ডিওএসবি স্থির করবে, হামবুর্গ ও বার্লিনের মধ্যে কোনো একটি শহর এ বিষয়ে অগ্রসর হতে পারবে কি না৷

জার্মানিতে অলিম্পিকের মতো প্রতিযোগিতার বিপুল ব্যয়ভার নিয়ে বেশ সংশয় রয়েছে৷ সম্প্রতি মিউনিখ শহরের মানুষ ২০২২ সালের শীতকালীন অলিম্পিক আয়োজনের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন৷ ফলে অলিম্পিক-বিরোধীরা বিপুল উৎসাহ পেয়ে হামবুর্গ ও বার্লিনের বাসিন্দাদের সতর্ক করে দিতে চান৷ দুই শহর কর্তৃপক্ষই এই প্রশ্নে গণভোট আয়োজন করার অঙ্গীকার করেছে৷ বার্লিনের কোষাগার দুর্বল হলেও অবকাঠামোর দিক থেকে তারা হামবুর্গের তুলনায় এগিয়ে৷ অন্যদিকে হামবুর্গের আর্থিক অবস্থা বার্লিনের তুলনায় ভালো৷

এসবি / জেডএইচ (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়