1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

অভিযুক্তরা নজরদারিতে আছেন: স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন বা র‌্যাবকে ‘ভাড়াটে খুনি’ বললেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর৷ তিনি এই এলিট ফোর্সকে অবিলম্বে বিলুপ্ত করার দাবি জানিয়েছেন৷

Rapid Action Battalion RAB Spezialeinheit Militär Dhaka Bangladesh

প্রতীকী ছবি

এদিকে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাকে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী যে-কোনো সময় গ্রেফতার করা হবে৷

ঢাকায় এক সমাবেশে সোমবার বিকেলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নারায়ণগঞ্জের ঘটনা উল্লেখ করে বলেন, ‘‘র‌্যাব ‘ভাড়াটে খুনি'৷ তারা টাকার বিনিময়ে খুন করছে৷ র‌্যাব মানুষের নিরাপত্তা দেওয়ার পরিবর্তে জীবন নিয়ে নিচ্ছে৷ এই বাহিনীর আর প্রয়োজন নেই৷ অবিলম্বে এই বাহিনীকে বিলুপ্ত করতে হবে৷'' তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াও বলেছেন র‌্যাবের আর প্রয়োজন নেই৷ তাঁর এই বক্তব্য ন্যায়সংগত৷ এটা এখন সময়ের দাবি৷

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, ‘‘উচ্চ আদালতের দেওয়া নির্দেশের পর এটা স্পষ্ট যে নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় র‌্যাব জড়িত৷ তবে কেবল র‌্যাবকে দায়ী করলেই হবে না, কেননা সরকার ও প্রধানমন্ত্রী এই বাহিনী পরিচালনায় ব্যর্থ হয়েছেন৷''

Mirza Fakhrul Islam Alamgir

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘‘র‌্যাব ভাড়াটে খুনি’’

বিএনপি র‌্যাব সৃষ্টি করেছে, এখন তারাই র‌্যাবের বিলুপ্তি চাচ্ছে, এই সমালোচনার জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘‘র‌্যাব গঠন করা হয়েছিল জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস নির্মূলের জন্য৷ কিন্তু এখন এই বাহিনীকে সরকার বিরোধী দল দমনের কাজে ব্যবহার করছে৷ এই বাহিনী সাধারণ মানুষকে খুন করছে৷ র‌্যাব বিলুপ্ত করে জনগণের সেবার জন্য আলাদা বাহিনী গঠন করতে হবে৷''

অন্যদিকে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল জানিয়েছেন, ‘‘অবসরে পাঠানো র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেফতারে আইনি প্রক্রিয়া চলছে৷ তাঁরা নজরদারিতে আছেন, শিগগিরই গ্রেপ্তার হবেন৷'' রবিবার হাইকোর্ট নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনার পর অবসরে পাঠানো র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করতে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং আইজিপিকে নির্দেশ দেন৷

আদালত আদেশে বলেন, দণ্ডবিধি বা বিশেষ ক্ষমতা আইনে তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া না গেলে তাঁদের ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করতে হবে৷ তিনজন র‌্যাব কর্মকর্তা হলেন র‌্যাব-১১'র সাবেক অধিনায়ক লে. কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, মেজর আরিফ হোসেন ও নারায়ণগঞ্জ ক্যাম্পের প্রধান লে. কমান্ডার এম এম রানা৷ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা ৬ কোটি টাকা ঘুস নিয়ে নারায়ণগঞ্জের ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম এবং আইনজীবী চন্দন সরকারসহ ৭ জনকে অপহরণ ও হত্যা করে৷ গত ২৭ এপ্রিল অপহরণের পর তাদের লাশ ৩০ এপ্রিল শীতলক্ষ্যা নদীতে ভেসে ওঠে৷

এদিকে নিহত নজরুলের শ্বশুর শহিদুল ইসলাম দাবি করেছেন, ‘‘অপহরণ ও হত্যার মূল আসামি নূর হোসেনকে র‌্যাব দেশের বাইরে পাঠিয়ে দিয়েছে ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে নিজেদের রক্ষার জন্য৷'' এই অভিযোগ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘‘এ বিষয়ে যাঁরা বক্তব্য দিয়েছে তাঁরা জানেন৷ আমরা তাঁকে (নূর হোসেনকে) গ্রেপ্তার করবই৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন