1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘অভিবাসীদের জীবন বাঁচানোকেই বেশি গুরুত্ব দেয়া উচিত'

মিয়ানমার তাদের নাগরিকদের সম্পর্কেও বলে আসছে, ‘ওরা অবৈধ অনুপ্রবেশকারী বাংলাদেশি৷' ইন্দোনেশিয়া বলেছে, সাগরে যারা ভেসে বেড়াচ্ছে তাদের অধিকাংশই বাংলাদেশি, তাই তাদের বাংলাদেশে ফিরতে হবে৷ মানুষগুলোর জীবন নিয়ে কি কেউ ভাবছে?

ইন্দোনেশিয়া সরকার জানিয়েছে, বাংলাদেশি অভিবাসন প্রত্যাশীদের খুব তাড়াতাড়িই ফেরত পাঠানো হবে৷

এর আগে ইন্দোনেশিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, তারা মনে করে এ মুহূর্তে সাগরে যারা ভেসে বেড়াচ্ছে, অনাহারে-অর্ধাহারে যাঁদের জীবন বিপন্ন, তারা কেউ মুসলিম রোহিঙ্গা নয়, তাদের সকলেই বাংলাদেশি৷ ঠিক এমন যুক্তিতেই এতদিন ধরে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছে মিয়ানমার৷ ভাগ্যান্বেষণে বাংলাদেশ ছেড়ে যাওয়া কয়েক হাজার মানুষের মধ্যে বাংলাদেশিও আছে – তা ঠিক৷ তবে সবাই বাংলাদেশের, কেউ রোহিঙ্গা নন, তাই তাঁদের সবাইকেই ফিরিয়ে দেয়া হবে – ইন্দোনেশিয়ার এ পর্যবেক্ষণ এবং সিদ্ধান্ত কতটা যৌক্তিক? কতটা মানবিক?

খবরটি একজন টুইট করেছিলেন৷

সেখানে মন্তব্যের ঘরে ইন্দোনেশিয়ার বক্তব্যের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে৷ একজন লিখেছেন, ‘‘বাংলাদেশি অভিবাসীরা তাঁদের ছোট ছোট সন্তানসহ পুরো পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে যাবে, এটা আমার বিশ্বাস হয় না৷''

আরেকজন মনে করেন, ইন্দোনেশিয়ার দাবি ঠিক মনে করার কোনো কারণ নেই৷ দাবিটা ঠিক কিনা তা জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে তদন্ত করে দেখা উচিত৷

তবে জাতিসংঘ এ প্রসঙ্গে চূড়ান্ত কথা বলে দিয়েছে৷ তাদের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার দিল্লিস্থ কার্যালয় এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন টুইট করেছে৷ প্রতিবেদনের মূল বক্তব্য, দক্ষিণ এশিয়ার অভিবাসীদের ক্ষেত্রে আর সব কিছুর চেয়ে তাদের জীবন বাঁচানোর বিষয়টিকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বে দেয়া উচিত৷

কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে, মিয়ানমারে অত্যাচার থেকে এবং বাংলাদেশে দারিদ্র্যের কষাঘাত থেকে মুক্তির আশায় মানুষগুলো যেসব দেশে যেতে চাচ্ছেন, সেসব দেশ তাঁদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর কাজেই বেশি তৎপর৷ বাংলাদেশ সরকারের সামনেও অন্য কোনো বিকল্প নেই৷ আগে যেমন সমস্যায় জর্জরিত দেশ হওয়া সত্ত্বেও মিয়ানমার থেকে আসা অসহায় মানুষদের একটা সময় পর্যন্ত নিজেদের ভূখণ্ডে প্রবেশ করতে দিয়েছে, আশ্রয় দিয়েছে, তেমনি এখনো অনেক অভিবাসন প্রত্যাশীকে ফিরিয়েও নিতে হচ্ছে৷ কয়েকদিন আগে ২০০ অভিবাসন প্রত্যাশীকে ফিরিয়ে নেয়ায় মিয়ানমারের সঙ্গে যৌথভাবে কাজও শুরু করেছে বাংলাদেশ৷

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়