1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

অভিবাসীদের জন্য হামবুর্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ পদক্ষেপ

তারা বুদ্ধিমান এবং মেধাবী৷ কিন্তু হাইস্কুলের গণ্ডি পার হতে কষ্ট হয় তাদের৷ জার্মান ভাষায় হিমশিম খেতে হয়৷ কথা হচ্ছে অভিবাসীদের সন্তানদের নিয়ে৷ উপযুক্ত সহযোগিতা পেলে কিন্তু এসব ছেলে-মেয়ে ঠিকই এগিয়ে যেতে পারে৷

‘‘স্কুলে একবারের বেশি প্রশ্ন করলেই শিক্ষকরা বিরক্ত হন’’, জানালো ১৫ বছরের আরিয়ান৷ হামবুর্গের একটি স্কুলে পড়াশোনা করছে সে৷ তার মা-বাবা এসেছেন ইরান থেকে৷ বছর দুয়েক ধরে হামবুর্গ ইউনিভার্সিটির এক প্রকল্পে আন্তঃসাংস্কৃতিক সেমিনার বা আইকেএস-এ অংশ গ্রহণ করছে আরিয়ান৷ বাবা তাকে ভর্তি করে দিয়েছেন সেখানে৷ তারপর থেকে সপ্তাহে দু'দিন ৯০ মিনিট করে ক্লাস করে আরিয়ান৷ এ কারণে বাবার কাছে সে কৃতজ্ঞ৷ জার্মান ভাষায় তার পরীক্ষার ফল আগের চেয়ে অনেক ভালো হয়েছে৷ এক লাফে পঞ্চম থেকে দ্বিতীয় গ্রেডে পৌঁছেছে৷ এখন ক্লাসে কোনো কিছু না বুঝলে প্রশ্ন করতেও দ্বিধা বোধ করে না এই কিশোর৷

তারা মেধাহীন নয়

‘‘আরিয়ানের মতো যেসব ছাত্র-ছাত্রী আইকেএস-এর ক্লাস করছে তারা মেধাহীন বা নির্বোধ নয়৷ তাদের প্রয়োজন শুধু সঠিক সাহায্য-সহযোগিতার৷ এসব ছেলে-মেয়ের সমস্যা মূলত জার্মান ভাষার ক্ষেত্রে'', বলেন শিক্ষিকা লিসা মিসোনসনিকোভা৷ অভিবাসী পরিবারের ছেলে-মেয়েদের শব্দ ভাণ্ডার খুব সীমিত৷ ব্যাকরণেও অনেকের অসুবিধা হয় বলে জানিয়েছেন তিনি৷

ক্লাস ফোর থেকে বাচ্চারা আইকেএস-এ জার্মান, ইংরেজি এবং অঙ্ক ক্লাস করতে পারে৷ জানান, প্রকল্পটির প্রধান উরসুলা নয়মান৷ চতুর্থ শ্রেণি থেকে অঙ্ক ক্লাসে ভাষার ব্যবহারও হয়ে থাকে প্রচুর৷ এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের কী ধরণের অসুবিধা হয় তা দৃষ্টান্ত দিয়ে বোঝাতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘‘যেমন ‘কমানো' মানে যে বিয়োগের কথা বলা হচ্ছে, তা বোঝে না অনেক ছেলে-মেয়ে৷''

সাধারণ স্কুলগুলোর অবস্থা অনুকূল নয়

সাধারণ স্কুলগুলোতে এসব শেখানো হয় না৷ সেখানে ধরেই নেওয়া হয় যে, ছাত্র বা ছাত্রী সেটা জানে৷ ভাষায় দখল থাকার প্রয়োজন উঁচু ক্লাসেও রয়েছে৷ ‘‘সঠিক সহায়তা পেলে অভিবাসী ছেলে-মেয়েরা হাইস্কুলের ফাইনাল পরীক্ষা, ‘আবিটুর' উত্তীর্ণ হতে পারে৷ এরপর পছন্দমতো বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করতে পারে বিশ্ববিদ্যালয়ে'', জানান নয়মান৷ তিনি আশা করেন, কিছু ছাত্রছাত্রী আগাশীতে শিক্ষকতায় আসবে৷ সে অনুযায়ী বিষয়ও নির্বাচন করবে৷ হামবুর্গের স্কুলগুলোতে অনেক ক্লাসে অভিবাসী ছাত্রছাত্রীই ৫০ শতাংশ, অথচ অভিবাসী শিক্ষকের হার মাত্র ৫ শতাংশ৷

সাধারণ জ্ঞানেও ঘাটতি

অভিবাসী পরিবারের বাচ্চাদের ভাষা সমস্যা ছাড়া সাধারণ জ্ঞানেও ঘাটতি রয়েছে৷ জার্মানির শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক কোনো পাঠ থাকলে জার্মান বাচ্চারা তা অনায়াসে বুঝতে পারে, কারণ, বাড়িতে এসব নিয়ে অনেক সময় আলোচনা হয়৷ কিন্তু বিদেশি ছেলে-মেয়েদের কাছে এসব বিষয় সহজে ব্যাপারটি বোধগম্য হয় না৷ তাদের এই অক্ষমতা আবার জার্মান ছেলে-মেয়েদের বিস্মিত করে৷ এ নিয়ে তারা ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ করতেও ছাড়ে না৷ ফলে বিবাদ-বিসংবাদ লেগেই থাকে৷

Bildbeschreibung: Allgemeine Beschreibung für alle Bilder: An der Uni Hamburg gibt es seit 2005 ein Programm, das Schülern mit Migrationshintergrund die nötige Hilfe geben möchte, damit sie dem Unterricht besser folgen können. Das Interkulturelle Schülerseminar (IKS) ist kein Nachhilfeunterricht, sondern fördert die Bildungssprache dieser Kinder, in den Fächern Deutsch, Englisch und Mathe. Bei der Mehrheit zeigt sich schnell eine Verbesserung der schulischen Leistung. Bildrechte: Janine Albrecht, freie Mitarbeiterin der DW, so dass alle Rechte bereits geklärt sind. Copyrightangabe: Bilder mit Personen NUR für diesen Artikel nutzen !!!!Hinweis: Einverständniserklärung der Eltern liegt vor!!! Schlagworte: Interkulturelles Schülerseminar (IKS), Universität Hamburg, Schüler, Migrationshintergrund, Bildungssprache, Förderung, Deutsch, Mathe, Englisch Wer hat das Bild gemacht?: Autorin Janine Albrecht Wann wurde das Bild gemacht?: 17.6.2013 Wo wurde das Bild aufgenommen?: Hamburg Bildbeschreibung: Schülerin Krishma und Schüler Arian im Deutschkurses am Interkulturellen Schülerseminars an der Universität Hamburg. Krishmas Eltern stammen aus Indien. Arians aus dem Iran.

অভিবাসী পরিবারের বাচ্চাদের ভাষা সমস্যা ছাড়া সাধারণ জ্ঞানেও ঘাটতি রয়েছে

ছাত্র-ছাত্রীদের প্রিয় কোর্স

গেট্রুডের মা-বাবা এসেছেন ঘানা থেকে৷ মা তাকে প্রায় জোর করেই আন্তঃসাংস্কৃতিক কোর্সে ভর্তি করিয়েছিলেন৷ এখন কোর্সটি তার এত ভালো লাগছে যে, বান্ধবী সেপিডেহকেও সাথে নিয়ে যায় ক্লাসে৷ ‘‘আমরা এখানে পরস্পরকে সহযোগিতা করি'', জানায় গেট্রুডে৷ ১৬ বছরের মেয়েটির কাছে ছোট ছোট গ্রুপে ক্লাস করার ব্যাপারটি খুব ভালো লাগছে৷ সবাই অভিবাসী পরিবার থেকে এসেছে বলে সহজভাবেই ভাষা শেখা হয়৷ তাদের জার্মান ভাষার শিক্ষিকার মাতৃভাষাও জার্মান নয়৷ ২৭ বছর বয়সি এই শিক্ষিকা রাশিয়া থেকে ২০০৮ সালে হামবুর্গে এসেছেন স্প্যানিশ ও জার্মান ভাষায় ব্যাচেলর ডিগ্রি করতে৷ চার বছর ধরে আইএসকে-তে পড়াচ্ছেন তিনি৷ ক্লাসের পরিবেশ বেশ খোলামেলা৷ ছাত্র-ছাত্রীরা মন দিয়ে পড়াশোনা করে৷ সুযোগ থাকলে অবশ্য গ্রীষ্মের বিকেলে বাইরে খেলাধুলা করতেই বেশি ভালো লাগতো তাদের৷ হেসে এ কথা স্বীকারও করে তারা৷ ‘‘কী আর করা, ভবিষ্যতের জন্যও তো কিছু করতে হবে'', বলে আলি৷ ও ফুটবল খেলতে খুব ভালোবাসে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন