1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

অভিবাসনপ্রত্যাশীদের কি ফ্রান্সের ‘জঙ্গল' ছাড়তেই হবে?

ফ্রান্সের ক্যালে শহরের অদূরে চরম শঙ্কা নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন অভিবাসনপ্রত্যাশীরা৷ আদালতের রায়ের ওপর নির্ভর করছে তাঁদের ভাগ্য৷ রায় বিপক্ষে গেলে ক্যালের শরণার্থী শিবির ছাড়তে হতে পারে তাঁদের৷

ক্যালের বহুল আলোচিত শরণার্থী শিবির স্থানীয় ফরাসি নাগরিক এবং সংবাদমাধ্যমের কাছে অবশ্য ‘দ্য জাঙ্গল' নামেই পরিচিত৷ এমন নামকরণের কারণ শিবিরের সার্বিক অব্যবস্থাপনা ও বিশৃঙ্খলা৷ স্থানীয় প্রশাসনের হিসেব অনুযায়ী সেখানে ৮০০ থেকে ১ হাজারের মতো অভিবাসনপ্রত্যাশীর অবস্থান৷ তবে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করছে এমন কিছু সংগঠন জানিয়েছে, তথাকথিত ‘জঙ্গল'-এ এই মুহূর্তে অন্তত ৩ হাজার ৪৫০ জন অভিবাসনপ্রত্যাশী বাস করছেন৷

স্থানীয় প্রশাসন ‘জঙ্গল' থেকে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অন্য জায়গায় সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ তাদের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে৷ মামলার বাদি ২৫০ জন অভিবাসনপ্রত্যাশী এবং অভিবাসীদের কিছু অধিকার সংস্থা৷ মঙ্গলবারই মামলার রায় হওয়ার কথা৷

অবশ্য রায় প্রদানের আগে মঙ্গলবারই ক্যালে শহরের কথিত ‘জঙ্গল' শরণার্থী শিবির পরিদর্শন করছেন মামলার বিচারক৷ শিবিরের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করার জন্যই সেখানে যাচ্ছেন তিনি৷

ক্যালের এই ‘জঙ্গল'-এর অভিবাসনপ্রত্যাশীরা ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম করে ব্রিটেনে প্রবেশ করতে চান৷ এ ‘স্বপ্ন' পূরণের জন্য তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে ক্যালের ওই এলাকায় দুর্বিষহ কষ্টের জীবনযাপন করছেন৷ সংবাদমাধ্যমের খবর এবং অভিবাসনপ্রত্যাশী ও অভিবাসী অধিকার সংস্থাগুলোর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ক্যালের ওই শিবিরের সুযোগ-সুবিধা আন্তর্জাতিক মানের কাছাকাছিও নয়৷ সেখানে মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের৷

ক্যালের স্থানীয় প্রশাসনের দাবি, ‘জঙ্গল' থেকে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সরিয়ে নেয়ার জন্য ইতিমধ্যে ফ্রান্সের বিভিন্ন স্থানে অন্তত ১০০টি শিবির প্রস্তুত করা হয়েছে৷ জানা গেছে, পরিত্যক্ত জাহাজের কিছু কন্টেইনারকেও শরণার্থী শিবির হিসেবে ব্যবহার করা হবে৷ অভিবাসনপ্রত্যাশীরা জানিয়েছেন, ওই আশ্রয়শিবিরগুলোও মোটেই সুস্থ, স্বাভাবিক জীবনযাপনের উপযুক্ত নয়৷

শীত মৌসুমে আবাসনের সুব্যবস্থা না করে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সরিয়ে নেয়ার উদ্যোগকে ‘ভয়ংকর পদক্ষেপ' মনে করছেন অভিবাসনপ্রত্যাশী এবং তাদের অধিকার সংরক্ষণ সংস্থাগুলো৷ অভিবাসনপ্রত্যাশীদের একটি সাহায্য সংস্থার প্রধান ক্রিস্টিয়ান সালোমে মনে করেন, ‘‘এ উদ্যোগ আসলে ভয়ংকর এক পশ্চাদযাত্রা৷''

এসিবি/ডিজি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়