1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

অবশেষে সুবিচারের একটা সুযোগ তৈরি হলো

রানা প্লাজা ধসের মামলায় ৪২ জনের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ এনে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ৷ এ খবরে অনেকেই সন্তুষ্ট৷ তবে এরপরেও সামাজিক যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম টুইটারে রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন নানা মত৷

গত সোমবার রানা প্লাজা ধসের দুটি মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ৷ একটি মামলায় রানা প্লাজা ভবন মালিক সোহেল রানাসহ ৪২ জনের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে, অন্যটিতে ভবন নির্মাণে ‘বিল্ডিং কোড' না মানায় ১৮ জনকে অভিযুক্ত করা হয়৷ অনেকেই টুইট করেছেন এই খবর৷ দু-একটিতে অভিযুক্তের সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি লক্ষ্য করা গেছে৷

২০১৩ সালের ২৪শে এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে পড়ায় ১১শ'রও বেশি পোশাক শ্রমিক মারা যায়৷ দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সিআইডি অভিযোগপত্র দাখিল করায় সবাই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন৷ টুইটারে একজন স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলার ভঙ্গিতেই লিখেছেন, ‘অবশেষে!'

একজন মনে করেন, অভিযোগপত্র দাখিল করায় অবশেষে সুবিচারের একটা সুযোগ তৈরি হলো৷

তবে সবাই ব্যাপারটিকে এভাবে দেখছেন না৷ ট্যান্সি ই হসকিন্স নামের একজন লিখেছেন, ‘‘আমার মতে সারা বিশ্বের যেসব প্রতিষ্ঠান কারখানাগুলোয় এমন ভয়াবহ পরিবেশের জন্য দায়ী তাদেরও বিচারের আওতায় আনলেই কেবল রানা প্লাজা দুর্ঘটনার শিকারদের প্রতি সুবিচার করা হবে৷ ''

রানা প্লাজা ধসের কারণে মারা যাওয়া এবং অন্যান্য ক্ষতিগ্রস্থদের কথা স্মরণ করে একজন লিখেছেন, ‘‘রানা প্লাজার ক্ষতিগ্রস্থদের এই বিশ্বের ভুলে যাওয়া উচিত নয়৷''

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়