1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

অপহরণ রহস্য উন্মোচনে নেমেছেন তদন্তকারীরা

বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতি বেলা’র নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিকের অপহরণের পুরো রহস্য উন্মোচন করতে চান তদন্তকারীরা৷ তাঁরা অপহরণের কারণ ও এর সঙ্গে কারা জড়িত ছিল তা জানতে চান৷

default

নারায়ণগঞ্জ পুলিশের পাশাপাশি ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটিও কাজ শুরু করেছে

প্রাথমিক তদন্তে অপহরণের সঙ্গে পেশাদার গ্রুপ জড়িত বলে মনে করছে পুলিশ৷

সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিক অপহৃত হওয়ার ৩৫ ঘণ্টা পর ফিরে এলেও এর সঙ্গে কারা জড়িত এবং কি কারণে তাঁকে অপহরণ করা হয়েছিল তা এখনো স্পষ্ট নয়৷ কিন্তু পুলিশ যেমন এর সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে চায়, তেমনি রিজওয়ানাও চান এর রহস্য জানতে৷

তাই নারায়ণগঞ্জ পুলিশের পাশাপাশি ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটিও কাজ শুরু করেছে৷ তদন্ত কমিটি শনিবার নারায়ণগঞ্জ এবং অপহরণ স্থল ফতুল্লা সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন৷ তদন্ত কমিটির সদস্য ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘খুব সুপরিকল্পিতভাবে নিপুণতার সঙ্গে অপহরণের ঘটনা ঘটানো হয়েছে৷ অপহরণের সঙ্গে জড়িত সন্দেহভাজনদের তালিকা খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷'' তিনি বলেন, ‘‘এ ঘটনা সম্পর্কে যত তথ্য পাওয়া যাবে, তা তদন্ত করে দেখা হবে৷ যারা এই অপহরণ করেছে, কী কারণে করছে, সেসব খুঁজে বের করাই তদন্তের উদ্দেশ্য৷''

Syeda Rizwana Hasan Goldman Environmental Prize 2009

বেলা’র নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘‘প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, অপহরণ কাজে পেশাদার গ্রুপ কাজ করেছে৷ তাই তাদের চিহ্নিত এবং আটক করা গেলে এর কারণ এবং নেপথ্যে কারা আছে তা জানা যাবে৷''

প্রাথমিকভাবে নারায়ণগঞ্জের আদালতে আবু বকর যে জবানবন্দি দিয়েছেন, তা ধরে তদন্তকাজ চলছে৷ তবে আবু বকরের সঙ্গে বিস্তারিত কথা বলবেন তদন্তকারীরা৷ যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম জানান, ‘‘নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ভুঁইগড় এলাকায় আবু বকরের অপহরণের সময় যেসব জিনিস ব্যবহার করা হয়েছে, সেগুলোর অনুসন্ধানেও কাজ চলছে৷ আর সব বিষয়ে আবু বকরের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে৷''

আবুবকর জবানবন্দিতে বলেছেন, ‘‘অপহরণকারীরা তাঁর স্ত্রী রিজওয়ানার সঙ্গে প্রভাবশালীদের জমিজমা নিয়ে দ্বন্দ্বের কথা বলেছে৷'' আর রিজওয়ানাও বলেছেন তাঁর পরিবেশ আন্দোলনের কারণে কয়েকটি হাউজিং কোম্পানি এবং প্রতিষ্ঠিত শিল্পগ্রুপ ক্ষুব্ধ৷ অন্যদিকে আবুবকর নারায়ণগঞ্জের হামিদ ফ্যাশান নামে পোশাক কারখানার নির্বাহী পরিচালক৷ কারখানাটি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর দু'মাস আগে চালু করা হয়৷

নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘তাঁরা সব দিকই খতিয়ে দেখছেন৷ অশ্যই অপহরণের কারণ জানা যাবে, অপরাধীরা আইনের আওতায় আসবেন৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন