1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

অন্তরঙ্গে সবুজ সংসার

জগন্ময় প্রকৃতি-পরিবেশ অক্ষুণ্ণ থাক৷ সংরক্ষণ করা হোক দুর্বাদলঘাসও৷ এই আশা প্রত্যেকের৷ মানুষ চায় অরাসায়নিক খাদ্যাদি, শষ্যাদি৷ সুস্থসবল স্বাস্থ্য জীবনের জন্যে অপরিহার্য৷

default

নতুনদিল্লিতে মোগলদের একটি বাগান

বাংলাদেশের বহুমানিত কবি রফিক আজাদের একটি কবিতার শিরোনাম – অন্তরঙ্গে সবুজ সংসার৷ তাঁর সবুজ সংসারে যুদ্ধ নয়, রাজনীতি নয়, হিংসা-দ্বেষ নয়, ক্ষীয়মাণ মূল্যবোধ নয়, সভ্যতার সংকট নয়৷ থাকবে চাষাবাদ, কৃষি থেকে শুরু করে পাখপাখালি এমন কী শামুক, গুগলিও৷ আরো কী থাকবে, লিখছেন কবি –

বিস্তীর্ণ প্রেইরি নয় – আপনার সবুজে

পরম নিশ্চিন্তে চরে নীলগাই,যুথবদ্ধ মেঘ,

নিরীহ হরিণগুচ্ছ, নৃত্যপর জেব্রা ও জিরাফ৷

এই মনোবাসনা কেবল কবিরই নয়, মনে-মনে পোষণ করে সব মানুষই৷

Flash-Galerie Deutschland Dioxin in Lebensmittel Labor

মুরগির মাংস ও ডিমে মারাত্মক জৈব রাসায়নিক পদার্থ ডাইঅক্সিন পাওয়া গেছে

অন্তরঙ্গে যে সবুজ সংসার, ওই সংসারে খাদ্যাখাদ্যের বাছবিচারও আছে৷ দুনিয়াজুড়ে আজ খাদ্য সংকট৷ ভেজালের ছড়াছড়ি৷ যেমন, জার্মানির মতো দেশেও মুরগির মাংস ও ডিমে মারাত্মক জৈব রাসায়নিক পদার্থ ডাইঅক্সিন দূষিত৷ বছর কয়েক আগে ইউরোপে গোমাংস ও দুধ নিয়ে কেলেঙ্কারির ঘটনা মানুষের মনে এখনো জাগ্রত৷ ভেজাল খাদ্যে কেবল শরীরস্বাস্থ্য নয়, মনমানসিকতায়ও ধস তৈরি করে৷

শরীরের নাম মহাশয় যা সহাবেন তাই সয় – এই প্রবাদ মানতে নারাজ অনেকেই৷ কেননা, খাদ্যে কেমিক্যাল মিশ্রিত৷ তো, নানাবিধ রোগেরও উৎপত্তি এই খাদ্যগ্রহণে৷ কে আর রোগব্যাধি নিয়ে বাঁচতে চায়! সবাই চায় সুস্থ জীবন৷ সবাই চায় পুষ্টিকর খাদ্য৷

সম্প্রতি শেষ হলো বার্লিন আন্তর্জাতিক সবুজ সপ্তাহ তথা কৃষিমেলা৷ এই মেলায় খাদকদের একটিই বুলি, ‘আমরা চাই ভেজালমুক্ত অরাসায়নিক খাদ্য'৷ উল্লেখ্য, উন্নয়নশীল দেশ থেকে জার্মানি ২৫ ভাগ অরাসায়নিক খাদ্য, পানীয় আমদানি করে প্রতি বছর৷ ইউরোপিয় ইউনিয়ন ৩০ ভাগ খাদ্য-শষ্যাদি উৎপাদন করছে৷

প্রত্যেকের অন্তরঙ্গেই আছে সবু সংসার৷ ক্রমবৃদ্ধি সব দেশেই৷

প্রতিবেদন: দাউদ হায়দার, বার্লিন

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন