1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

অনলাইনে ধাক্কা দিল অ্যাপল আইপ্যাড, আসছে বাজারে

শুক্রবার অনলাইনে ব্যাপক ভিড় করেছিল অ্যাপল ভক্তরা৷ উদ্দেশ্য একটাই, আইপ্যাড টেবলেট কম্পিউটারের জন্য অগ্রীম বুকিং দেয়া৷ সংস্থাটি জানিয়েছে, আগেভাগে অনলাইনে অর্ডার দিলে বিনাখরচায় তা ঘরে পৌঁছে দেয়া হবে৷

default

কম্পিউটিং তথা প্রযুক্তি পণ্যে অ্যাপলের এই নব সংযোজন বাজারে আসবে ৩ এপ্রিল৷ তার আগেই ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে শুক্রবার থেকেই ইন্টারনেটে অগ্রীম বুকিং নিতে শুরু করে অ্যাপল৷ জানায়, এই মুহূর্তে একজন দু'টির বেশি আইপ্যাড কিনতে পারবেন না৷ কারণ চাহিদা অনেক, সরবরাহ কম৷

এই প্রতিবেদনটি লিখতে গিয়ে নিজেই ধাক্কা খেয়েছিলাম খানিকটা৷ তাই আইপড আর আইপ্যাড এর ব্যবধান খুঁজতে ইন্টারনেট ঘাটতেও হয়েছে কিছুক্ষণ৷ আপাতত জানা জেনেছি, তা হচ্ছে আইপ্যাড এমন এক যন্ত্র যা একইসঙ্গে ভিডিও দেখা, গান শোনা, গেম খেলা, ইন্টারনেট ব্রাউজিং এবং ইলেকট্রনিক বই পড়ার সুযোগ দেবে৷ বস্তুত এসবই সম্ভব হালের স্মার্টফোনগুলোতে৷ আর তাই এই যন্ত্রে নতুন কি আছে তা খুঁজতে আগালাম খানিকটা৷ এবার প্রাপ্ত তথ্য হচ্ছে, আইপ্যাড এর আকার আইপডের চেয়ে খানিকটা বড় আবার ল্যাপটপের গড়পড়তা আকৃতির চেয়ে খানিকটা ছোট, অর্থাৎ এর রয়েছে ৯ দশমিক সাত ইঞ্চি কালার মনিটর এবং এটি শূন্য দশমিক পাঁচ ইঞ্চি পুরু৷ আর হ্যাঁ ওজন বেশ কম মাত্র দেড় পাউন্ড৷ এটির তথ্য ধারণ ক্ষমতা যথাক্রমে ১৬, ৩২ এবং ৬৪ গিগাবাইট৷

Amerika Apple Ipad Präsentation Flash-Galerie

অ্যাপল নায়ক স্টিভ জবস, হাতে আইপেড

এবার খানিকটা আগ্রহ আমার নিজেরও জন্মেছে৷ তবে আরো যে বিষয়গুলো আইপ্যাডকে আইপড থেকে আলাদা করেছে তা হলো এর রয়েছে ওয়াইফাই এবং থ্রিজি সংযোগের সুবিধা৷ যা ব্যবহার করে ইন্টারনেট থেকে ইলেকট্রিক বুক এবং ভিডিও সহ ডাউনলোড করা যাবে নানা কিছু৷

এছাড়া আইপ্যাডে অ্যাপলের প্রায় দেড় লাখ সফটওয়্যার বা এপ্লিকেশন ব্যবহার করা যাবে৷ সুযোগ থাকবে সফটওয়্যার আপডেটের৷

স্বভাবতই প্রশ্ন জাগতে এতকিছু যে যন্ত্রে তার দাম কত হবে? আপাতত জানা যাচ্ছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৩ এপ্রিল নাগাদ দোকানেই পাওয়া যাবে আইপ্যাড৷ সাধারণটি অর্থাৎ শুধুমাত্র ওয়াইফাই আর ১৬ গিগাবাইট ধারণক্ষমতার আইপ্যাড এর দাম ৪৯৯ ডলার৷ অন্যদিকে, থ্রিজি সুবিধাসহ ৬৪ গিগাবাইট আইপ্যাড এর দাম ৮২৯ মার্কিন ডলার৷ ও হ্যাঁ, এই দাম কিন্তু শুধু মার্কিন মুল্লুকের জন্য৷ কারণ আন্তর্জাতিক বাজারের দাম এখনো ঠিক করেনি অ্যাপল৷ তবে এপ্রিলের শেষদিকেই জানা যাবে তা, একইসঙ্গে সে সময় আইপ্যাড বিক্রি হবে ইউরোপেও৷ আপাতত সে সময়েরই অপেক্ষা৷

প্রতিবেদক: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সুপ্রিয় বন্দোপাধ্যায়

সংশ্লিষ্ট বিষয়