1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

অনলাইনে আসবাব কেনা

অনলাইনে অর্থাৎ ইন্টারনেটের মাধ্যমে যখন হাতি থেকে হাতাখুন্তি, সব কিছুই কেনা যায়, তখন আসবাবপত্রই বা কেনা যাবে না কেন? ‘হোম টোয়েন্টিফোর' সেই ধরনের একটি অনলাইন ফার্নিচার কোম্পানি৷

ধরুন মডেল হল দু'টি চেয়ার৷ ‘হোম টোয়েন্টিফোর' কোম্পানির নিজস্ব স্টুডিওতে তাদের ছবি তোলা হবে৷ অনলাইন ফার্নিচার বিক্রির ব্যবসা, কাজেই ছবি তোলার জন্য বেতন দিয়ে চারজন ফটোগ্রাফার রাখতে হয়েছে৷

দোমেনিকো চিপোলা হলেন কোম্পানির প্রধান৷ জার্মানিতে অনলাইন ফার্নিচার বিক্রির ব্যবসায় চিপোলা-র কোম্পানি হল নাম্বার ওয়ান৷ ইন্টারনেটে ‘হোম টোয়েন্টিফোর' কোম্পানির চেয়ে বেশি আসবাব আর কোনো কোম্পানি বিক্রি করে না: বছরে দশ কোটি ইউরোর বেশি৷ চিপোলা ব্যবসার সব দিকের ওপর নজর রাখেন, যেমন ক্যাটালগের জন্য ছবি তোলা, ‘‘এগুলো খুব খুঁটিয়ে তোলা ছবি৷ আমাদের আইটেমগুলোর পাঁচ-ছয়-সাত'বার করে ছবি তোলা হয়, বিভিন্ন অ্যাঙ্গল থেকে৷ এছাড়া আইটেমগুলোর ভিডিও সিকোয়েন্স দেখা যায়৷ ভিডিও-য় প্রোডাক্টটির অন্যান্য দিক দেখা যায়৷ এছাড়া আমাদের এমন একটি বস্তু আছে, যা অফলাইনে সম্ভব নয়: গ্রাহকদের মূল্যায়ন৷''

Bildergalerie Optical Illusions Möbel

ইন্টারনেটে ‘হোম টোয়েন্টিফোর' কোম্পানির চেয়ে বেশি আসবাব আর কোনো কোম্পানি বিক্রি করে না

শুধু পণ্যই নয়, পরিষেবাও ঠিকমতো হওয়া চাই৷ নয়তো বদনাম হবে৷ কখনো-সখনো একশো কিলোগ্রাম ওজনের পার্টস পাঠাতে হয়৷ কাজেই চিপোলা সদ্য একটি নতুন লজিস্টিক্স সেন্টার তৈরি করেছেন: এখানে এক হাজারের বেশি মানুষ কাজ করেন৷

ফার্নিচার বিক্রির ব্যবসায় ডিসকাউন্ট না দিয়ে পার নেই৷ অনলাইনের দাম আবার অফলাইনের চেয়ে আরো ৩০ শতাংশ কম৷ দিনে বেশ কয়েক হাজার গ্রাহকের কাছে আসবাব পৌঁছে দেয় চিপোলা-র কোম্পানি৷ তিনি বলেন, ‘‘শতকরা নিরানব্বইটি ক্ষেত্রে পণ্য অক্ষত অবস্থায় গ্রাহকের কাছে পৌঁছয়৷ যদি প্যাকেট খোলার পর দেখেন যে কিছু একটা ভেঙে গেছে কিংবা কোনো ক্ষতি হয়েছে, তাহলে আমাদের জানালেই আমরা গোটা ডেলিভারিটা বিনামূল্যে আপনার বাড়ি থেকে আবার তুলে নিয়ে আসব৷ আপনি যদি সেটা আবার প্যাক করে রাখেন, তো ভালো৷ তা না করলে, আমরা নিজেরাই প্যাক করে নেব৷''

করিনা শুলৎসে ‘হোম টোয়েন্টিফোর'-এর গ্রাহক৷ দু'টি জিম-এর মালিক, জার্মানিতে যাকে বলে ‘ফিটনেস স্টুডিও'৷ করিনা অনলাইনে ফার্নিচার কেনেন, কেননা তাতে সময় বাঁচে৷ বলতে কি, ক্রমেই আরো বেশি জার্মান এই কারণে অনলাইনে, অর্থাৎ ইন্টারনেটে আসবাব কিনছেন৷ কাজেই সাধারণ ফার্নিচারের দোকান, মলগুলিকেও এবার সে পথেই যেতে হবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক