1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

অনন্ত হত্যা: অপরাধীদের কেউ শনাক্ত হয়নি

তিনদিনেও ব্লগার অনন্ত বিজয় দাস হত্যার অপরাধীদের চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশ৷ তবে সিলেট বিমানবন্দর থানায় তাঁর ভাই অজ্ঞাত চারজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন৷ প্রাথমিকভাবে সন্দেহের তালিকায় রয়েছে ধর্মীয় উগ্রবাদীরাই৷

Bangladesch Proteste gegen den Mord an den Blogger Ananta Bijoy Das

ব্লগার অনন্ত বিজয় দাস হত্যার বিচার দাবি

মামলার এজাহারে বলা হয়, ‘‘উগ্র ধর্মান্ধ গোষ্ঠীর চারজন মুখোশধারী অনন্তকে হত্যা করেছে৷''

বলা হয়, ‘‘তিনি ব্যাংকে চাকরি করার পাশাপাশি লেখালেখি করতেন৷ একজন প্রগতিশীল চিন্তাধারার লোক ছিলেন অনন্ত৷ বিভিন্ন ব্লগে লেখালেখির মাধ্যমে মুক্তবুদ্ধির চর্চা করতেন৷'' আর এ কারণেই কোনো উগ্র ধর্মান্ধ গোষ্ঠী তাঁকে খুন করতে পারে বলে এজাহারে সন্দেহ করা হয়েছে৷

সিলেট বিমানবন্দর থানার ওসি গৌসুল হোসেন ডয়চে ভেলেক জানান, ‘‘আমরা এখনো সন্দেহের মধ্যেই আছি৷ কাউকে আটক বা গ্রেপ্তার করতে পারিনি৷ হত্যাকারীরা ছিল মুখোশধারী৷ তাই তাদের কোনো প্রত্যক্ষদর্শীর পক্ষে শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না৷''

Bangladesch Blogger Ananta Bijoy Das wurde ermordet

চলতি বছর ডয়চে ভেলের দ্য বব্স অ্যাওয়ার্ড জয়ী ব্লগিং সাইট মুক্তমনার লেখক ছিলেন অনন্ত বিজয় দাস

এদিকে অনন্ত দাসের বাসা পরিদর্শন করেছেন মহানগর পুলিশের কমিশনার কামরুল আহসান৷ পরিদর্শনের সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘মামলা হওয়ার পর আসামি শনাক্ত করার কাজ চলছে৷ এ কাজে যত ধরনের উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন, তার সবই নেওয়া হয়েছে৷''

সিলেট গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র দেবাষীশ দেবু ডয়চে ভেলেক জানান, ‘‘সিলেট বিমানবন্দর পুলিশ আসলে এই মামলার তদন্তের কিছুই করছে না৷ তারা বলছে, এই মামলার তদন্তের জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত তদন্ত কর্মকর্তা দরকার৷ তাই তারা এই মামলার তদন্ত করতে চাইছে না৷''

তিনি বলেন, ‘‘আমরা দেখেছি কোনো অপরাধ হলে পুলিশ প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের অল্প সময়ের মধ্যে ধরে ফেলে৷ কিন্তু এই মামলার ক্ষেত্রে শুরুতেই তাদের অনীহা বিস্ময়কর৷''

দেবাষীশ দেবু জানান, ‘‘অনন্ত হত্যাকাণ্ড পুরো সিলেটবাসী কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না৷ পুলিশের ভূমিকায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছেন৷ আমরা এর প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেলে সিলেটে সংহতি সমাবেশ করবো৷''

ওদিকে অনন্ত বিজয় দাসের ভগ্নিপতি সমর বিজয় সি শেখর ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘আমরা এখনো অন্ধকারে আছি৷ আমরা সন্দেহ করছি যে, ধর্মীয় উগ্রবাদীরা অনন্তকে হত্যা করেছে৷ কিন্তু পুলিশ এখনও কাউকে চিহ্নিত বা আটক করতে পারেনি৷''

তিনি জানান, ‘‘গত তিনদিনে পুলিশের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা বাসায় এসেছেন৷ কিন্তু তাঁরা তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে কিছু জানাননি৷ তাঁরা আমাদের শুধুমাত্র শান্তনা আর আশ্বাস দিয়েছেন৷ পুলিশ কমিশনার কামরুল আহসান আমাদের বলেছেন যে, তাঁরা চেষ্টা করছেন অপরাধীদের শনাক্ত এবং আটক করতে৷''

সমর বিজয় সি শেখর বলেন, ‘‘আমরা চাই দ্রুত যেন আসামিরা ধরা পড়ে৷ মামলা যেন হিমঘরে চলে না যায়৷''

সিলেট নগরের সুবিদবাজারের নূরানী আবাসিক এলাকায় মঙ্গলবার নিজ বাসার অদূরে ব্লগার অনন্তকে কুপিয়ে হত্যা করে মুখোশধারী চার যুবক৷ মামলার বাদি অনন্ত দাসের ভাই রতেশ্বর দাস বলেন, ‘‘ব্যক্তিগত ও পেশাগত জীবনে অনন্তের কোনো শত্রু নেই৷ এর আগে ব্লগারদের ওপর যেভাবে আক্রমণ হয়েছে, সেভাবেই অনন্তকে হত্যা করা হয়েছে৷ এ কারণেই আমার সন্দেহ স্বাধীন ও মুক্তমতের চর্চা করার জন্যই পরিকল্পিতভাবে উগ্রবাদীরা তাঁকে হত্যা করেছে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন