1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

অটোগ্রাফ শিকারি আনোয়ারুল কাদির

মানুষের অনেক ধরণের শখ থাকে৷ এই যেমন নওগাঁর মোহাম্মদ আনোয়ারুল কাদির৷ ৭২ বছরের জীবনে তিনি তিন হাজারেরও বেশি বিখ্যাত ব্যক্তির অটোগ্রাফ সংগ্রহ করেছেন৷ তাঁদের নামের তালিকা দেখলে আপনাকে অবাক হতে হবে৷

দক্ষিণ আফ্রিকার অবিসংবাদিত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলা, ফিলিস্তিনের সাবেক প্রেসিডেন্ট ইয়াসির আরাফাত, ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী, মালয়েশিয়ার নেতা মাহাথির মোহাম্মদ, এঁদের সবার অটোগ্রাফ রয়েছে কাদিরের কাছে৷

ডয়চে ভেলের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে আইন বিষয়ে স্নাতক কাদির বলেন, ‘‘১২ বছর বয়স থেকে তিনি অটোগ্রাফ সংগ্রহ শুরু করেন৷ এখনো চালিয়ে যাচ্ছেন৷''

মূলত চিঠি লিখে বিখ্যাত ব্যক্তিদের কাছ থেকে অটোগ্রাফ সংগ্রহ করেন তিনি৷

অডিও শুনুন 04:51

সাক্ষাৎকারটি শুনতে ক্লিক করুন এখানে

এজন্য অনেক সময় বছরের পর বছর চেষ্টা করতে হয়েছে তাঁকে৷ যেমন কিউবার ফিদেল কাস্ত্রোর কাছ থেকে অটোগ্রাফ পেতে তাঁকে ৪০ বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে বলে জানান তিনি৷ তেমনি দক্ষিণ আফ্রিকার নোবেলজয়ী ডেসমন্ড টুটু'র কাছ থেকে উত্তরের জন্য অপেক্ষায় ছিলেন প্রায় ৩০ বছর!

অবশ্য কাদির ছোটবেলা থেকে কানের সমস্যায় ভুগছেন৷ তাই দুই কানে ভালোভাবে শুনতে পান না তিনি৷ কথা বলার সময় যন্ত্রের সাহায্য নিতে হয় তাঁকে৷ নিজের মেয়ে আফরোজা বর্ণার সহায়তায় ডয়চে ভেলেকে সাক্ষাৎকার দেন তিনি৷ সে সময় একে একে বলে চলেন বিখ্যাত সব ব্যক্তির নাম, যাঁদের অনেকে আবার নিজহাতে চিঠি লিখে কাদিরকে উৎসাহিত করেছেন৷

জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিবসহ মোট সাতজন মহাসচিব, ৬০ জন নোবেলজয়ী, যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি সহ আরও কয়েকজন প্রেসিডেন্ট, জার্মানির বর্তমান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল সহ অন্যান্য চ্যান্সেলর ও কয়েকজন প্রেসিডেন্টের অটোগ্রাফ রয়েছে কাদিরের কাছে৷

Bildergalerie Autogramme aus Mohammad Anwarul Quadirs Sammlung

বর্তমান ও সাবেক দুই জার্মান চ্যান্সেলরের অটোগ্রাফ

রয়েছে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরু, পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো, পরিচালক সত্যজিৎ রায়, সাবেক যুগোস্লাভিয়ার নেতা মার্শাল টিটো, প্রথম এভারেস্টজয়ী শেরপা তেনজিং নোরগে ও স্যার এডমন্ড হিলারি, বিশ্বখ্যাত সাঁতারু মাইকেল ফেলপস, পাকিস্তানের ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ হওয়া ইমরান খান - এঁদের অটোগ্রাফ৷

অটোগ্রাফের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশের স্টাম্প ও সংবাদপত্রের কাটিংও সংগ্রহ করেন তিনি৷

নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে কাদির বলেন, ‘‘আমি নিজে যেহেতু একজন প্রতিবন্ধী, তাই আমি তাদের কল্যাণে কাজ করতে চাই৷ এজন্য প্রচুর অর্থের প্রয়োজন৷ তাই আমার অটোগ্রাফগুলোর একটা বড়সড় আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী করতে চাই৷

‘‘এছাড়া ইংরেজিতে একটা বইও প্রকাশ করার ইচ্ছা আছে আমার৷ সেখানে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের ছবির পাশাপাশি থাকবে তাঁদের জীবনবৃত্তান্ত ও অটোগ্রাফ,'' বলেন কাদির৷

তিনি অবশ্য জানেন না তাঁর এই স্বপ্ন কখনো পূরণ হবে কি না৷ পাঠক, আপনি কী জানেন?

সাক্ষাৎকার: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও