1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

অটিস্টিক কর্মীদের নিয়োগ করছে এসএপি

জার্মানির বিখ্যাত বহুজাতিক সংস্থা এসএপি ভারতে সফটওয়্যার টেস্টিং-এর জন্য অটিস্টিক কর্মীদের কাজে লাগাচ্ছে৷ দুর্বলতা নয়, তাদের বিশেষ ‘গুণাগুণ'-এর কারণেই এই সিদ্ধান্ত৷

ভিডিও দেখুন 02:41

অটিস্টিক মানুষদের সাফল্যের কথা শুনুন

গভীর মনোযোগ দিয়ে কাজ করতে হয়৷ যুক্তি খাটাতে পারলেই ভালো৷ তখন অনিরুদ্ধ বাকি সব কিছু ভুলে যান৷ অটিস্ট হওয়া সত্ত্বেও অনেক কষ্টে করেসপন্ডেস কোর্স শেষ করেছেন তিনি৷ এখন ভারতের ব্যাঙ্গালোর শহরে জার্মানির এসএপি কোম্পানিতে কম্পিউটার প্রোগ্রাম পরীক্ষা করেন অনিরুদ্ধ৷ সঙ্গে আছেন আরও চারজন অটিস্টিক কর্মী৷ তিনি বলেন, ‘‘আমার কাছে এর গুরুত্বই আলাদা৷ নিজের পায়ে দাঁড়াতে পেরেছি৷ নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন করার সুযোগও পাচ্ছি৷'' ঠিক বিকাল ৫টার সময় অনিরুদ্ধ এসএপি সংস্থার নিজস্ব বাসের দিকে এগিয়ে যান৷ কর্মীদের বাসায় পৌঁছে দেয় এই বাস৷ অনিরুদ্ধ জানালেন, তাঁর মা ছেলেকে নিয়ে খুবই গর্বিত৷ তিনি নিজেও গর্ব বোধ করেন৷

Bangalore, IT-Park Whitefield, Indien, Sekretärinnen

ভারতের ব্যাঙ্গালোরে এসএপি দপ্তর

মিশেল আইজ্যাক অটিস্টিক কর্মীদের সঙ্গে কথাবার্তার দায়িত্ব নিতে চান৷ মস্তিষ্কে একটি সমস্যার কারণে অটিস্টদের পক্ষে কোনো তথ্য অনুধাবন করে তা বোঝার ক্ষমতা কম৷ মিশেল কোম্পানি ও তাদের মধ্যে সেতুবন্ধ রচনার চেষ্টা করে চলেছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি অফিসে না থাকলেও তারা এসএমএস পাঠিয়ে জানতে চায়, মিশেল তুমি কোথায় আছো? কখন অফিসে আসবে? তারা নিঃসঙ্গ বোধ করে৷ মিশেল এলেই আবার সব কিছু যেন ঠিক হয়ে যায়৷ আমার প্রতি তাদের আস্থা রয়েছে, আর আমার তাদের প্রতি৷''

ব্যাঙ্গালোর ভারতের আইটি রাজধানী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে৷ এসএপি এখানে ৫,০০০-এরও বেশি কর্মী নিয়োগ করেছে৷ ক্যান্টিনে সবার জন্য দুপুরের খাবার ফ্রি৷

সফটওয়্যার সমস্যা দেখা দিলে অটিস্টিক কর্মীরা প্রায়ই একেবারে অন্য রকমের সমাধান বাতলে দেন৷ শুধু তাই নয়৷ এসএপি ল্যাবস ইন্ডিয়া-র ভাইস প্রেসিডেন্ট অবিনাশ দুবে বলেন, ‘‘খুঁটিনাটি বিষয় বোঝার আশ্চর্য ক্ষমতা রয়েছে তাদের৷ সেইসঙ্গে অসাধারণ স্মৃতিশক্তি৷ কাজের পুনরাবৃত্তি হলেও তাদের কোনো সমস্যা নেই৷ সফটওয়্যার টেস্টিং-এর ক্ষেত্রে আমাদের এই সব গুণাগুণ চাই, যা তাদের আছে৷''

এসএপি তাই আরও অটিস্টদের তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ হিসেবে নিয়োগ করতে চায়৷ শুধু ভারতের ব্যাঙ্গালোর নয়, জার্মানিতেও৷

এক্ষেত্রে এগিয়ে এসেছে এমন একটি সংগঠন, যারা অটিস্ট-কর্মীদের বিভিন্ন সংস্থায় কাজের ক্ষেত্রে সহায়তা করে৷ তাদের প্রতিনিধি মাটিয়াস প্র্যোসল বলেন, ‘‘সব কিছু খুঁটিয়ে দেখতে হয়৷ আবেদনকারী কে, তা বুঝতে হবে৷ চাকরির প্রার্থী ও সংস্থা – দুই পক্ষকেই ভালো করে জানতে হবে৷ আসল লক্ষ্য হলো এমন সব মানুষকে বেকারত্ব থেকে মুক্ত করা, যারা কাজ করতে খুবই আগ্রহী৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও